বিপিএল বন্ধের ও বাল্যবিয়ে চালুর দাবি ওলামা লীগের

নিজস্ব প্রতিবেদক, পিটিবিনিউজ.কম
ক্রিকেটের জনপ্রিয় আসর বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল) নিষিদ্ধের দাবি তুলেছে ওলামা লীগ। সেই সঙ্গে বাল্যবিয়ে বিরোধ আইন বাতিলের দাবিও জানিয়েছে আওয়ামী লীগ সমর্থক সংগঠনটি।

আজ সোমবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে এক মানববন্ধন কর্মসূচি থেকে এসব দাবি তোলেন ওলামা লীগের নেতারা।

বিপিএল নিষিদ্ধের দাবি তোলার পক্ষে ওলামা লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুল হাসান শেখ শরিয়তপুরী বলেন, ‘এই ক্রিকেট টুর্নামেন্ট জুয়া খেলার প্রসার ঘটাচ্ছে। বিপিএলের নামে দেশকে জুয়াড়ীদের আস্তানায় পরিণত করা হচ্ছে। প্রতিটি ব্যাটে বলে এখন জুয়ার বাজি ধরা হচ্ছে। বড় বড় জুয়াড়ীদের পাশাপাশি চায়ের দোকানের সাধারণ লোকজনও এখন বিপিএল, আইপিএল তথা ক্রিকেট জুয়ায় মত্ত হয়েছে, যা সম্পূর্ণ সংবিধানবিরোধী।’

ওলামা লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু দেশের সংবিধানে মদ ও জুয়া নিষিদ্ধ করেছেন। সেই জুয়াড়ী তৈরির আসর বিপিএল, আইপিএলের মতো খেলাধুলা বাংলাদেশে নিষিদ্ধ করতে হবে।’

নারী ফুটবলারদের প্রসঙ্গে আবুল হাসান শেখ বলেন, ‘নারী ফুটবলারদের বিয়ে নিষিদ্ধ করে লিভ টুগেদারসহ অনৈতিকতাকে উৎসাহিত করায় বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের ষড়যন্ত্রকারী হোতাদের অবিলম্বে গ্রেপ্তার করতে হবে।’

বাল্যবিয়ের পক্ষে যুক্তি দেখিয়ে ওলামা লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘বাল্যবিয়ের নিষিদ্ধের কারণে দেশে গর্ভপাত বেড়ে গেছে। ১৮ বছরের নিচের ছেলে-মেয়েদের বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্কের ফলে আশঙ্কাজনকহারে বেড়েই চলে অবৈধ গর্ভপাত, ভ্রুণহত্যা ও কুমারী মাতার পরিমাণ।’

ওলামা লীগের সভাপতি মুহম্মদ আখতার হুসাইন বুখারী এক জরিপের তথ্য উদ্ধৃত করে বলেন, ‘২০১৪ সালে বাংলাদেশে ১১ লাখ ৯৪ হাজার অবৈধ গর্ভপাত হয়েছে। এ হিসাবে গড়ে দিনে ৩ হাজার ২৭১টি গর্ভপাত করা হয়েছে। বৈধ ও শরীয়তসম্মত বাল্যবিবাহের বিরুদ্ধে বললেও ১৮ বছরের নিচের টিনেজ ছেলে-মেয়েদের লাখ লাখ অবৈধ গর্ভপাতকে সমর্থন করছে বাল্যবিবাহ বিরোধীরা। অথচ বাংলাদেশের পেনাল কোড অনুযায়ী গর্ভপাত অবৈধ।’

বাল্যবিয়ে নিরোধ আইনের জন্য সরকারের সমালোচনা করে আবুল হাসান বলেন, অবিলম্বে এই ‘কুফরি আইন’ প্রত্যাহার করতে হবে।