সকালে শুরুতেই রাজধানীতে ঝোড়ো বাতাস ঝিরিঝিরি বৃষ্টি

ফাইল ছবি।

নিজস্ব প্রতিবেদক, পিটিবিনিউজ.কম
সকাল থেকেই ঢাকার আকাশে মেঘের ঘনঘটা। সকাল ৮টার দিকে আকাশ অনেকটাই কালো হয়ে ওঠে। এরপর শুরু হয় রাজধানীতে ঝিরিঝিরি বৃষ্টি। ঢাকার মিরপুর, খিলগাঁওয়ে বৃষ্টি একটু বেশি হয়েছে। ঝোড়ো বাতাসও বইছে। হাতিরঝিল, কলাবাগান, কারওয়ান বাজারের দিকে বৃষ্টি কিছুটা কম। সঙ্গে ছিলো বজ্রপাত। আজ শনিবার (৬ এপ্রিল) সরকারি ছুটির দিন। তাই রাজধানীবাসীর অনেকেই ঘরে বসে বৃষ্টি উপভোগ করছে। অনেকে হয়তো চাদর মুড়ি দিয়ে ঘুমিয়েই কাটাচ্ছেন বৃষ্টিভেজা সকাল। তবে রাস্তায় বের হওয়া মানুষকে দুর্ভোগে পড়তে হয়েছে। কর্মব্যস্ত সকালটা বৃষ্টির সঙ্গে এভাবেই শুরু হয় রাজধানীবাসীর। অফিস যাওয়ার পথে অনেকেই মাঝরাস্তায় বৃষ্টির তোপে পড়ে আশ্রয় নিতে হয় বিভিন্ন দোকানে ও বিভিন্ন বাসার বারান্দায়। তবু বৃষ্টি উপেক্ষা করেই সকালেই কর্মমুখী মানুষের দৌড়ঝাঁপ লক্ষ্য করা গেছে বিভিন্ন এলাকায়। অনেককেই আবার বৃষ্টিতে কাকভেজা হয়ে অফিসে পৌঁছান।

অফিসগামী শওকত আলী বলেন, রোজ ছাতা নিয়ে বের হই, বৃষ্টি ধরে না। আজ ছাতা নিইনি, বৃষ্টি ধরেছে।

এদিকে সকালেই ঝড়ো বাতাসের সঙ্গে বৃষ্টির কারণে রাস্তায় যানবাহনের সংখ্যা কম দেখা যায়। এতে অফিসগামী মানুষকে ভোগান্তিতে পড়তে হয়। রাস্তার বিভিন্ন মোড়ে মোড়ে বাসের জন্য অপেক্ষা করতে হয় লোকজনকে। আবার প্রস্তুতি না থাকায় ছাতা ছাড়া বৃষ্টিতে ভিজতে দেখা যায় পথচারীদের

আবহাওয়া দপ্তর পূর্বাভাস দিয়েছিলো, এপ্রিলের শুরুতে সারা দেশে কালবৈশাখী বয়ে যাবে। সেই পূর্বাভাস একদম মিলে গেছে। মার্চের শেষ দিন কালবৈশাখীর ঝাপটায় লন্ডভন্ড হয়েছে দেশের বিভিন্ন অঞ্চল। এপ্রিলের শুরু থেকেই উত্তরে রাজশাহী, মধ্যাঞ্চলে ঢাকা, টাঙ্গাইল, কিশোরগঞ্জ, গাজীপুরসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় কালবৈশাখীর সঙ্গে সঙ্গে শিলা বৃষ্টি হচ্ছে। বৈশাখী ঝড়ের সঙ্গে বৃষ্টিও দাপট দেখিয়েছে।

আবহাওয়া অধিদপ্তর বলছে, কালবৈশাখী ঝড়ের হানা দেয়ার আশঙ্কা আরো কিছুদিন থাকবে।

গত রোববার এক মিনিটের কালবৈশাখী ঝড়ে রাজধানীর বিভিন্ন জায়গায় গাছের ডাল, দেয়াল ও ইটের আঘাতে চারজন নিহত হয়। তাই ঝড়-বৃষ্টির সময় রাজধানীবাসীর সতর্ক চলাফেরা দরকার।