বলিউড অভিনেত্রী আলিয়া ভাটের জন্মদিন আজ

বিনোদন ডেস্ক, পিটিবিনিউজ.কম
বলিউড অভিনেত্রী আলিয়া ভাটের জন্মদিন আজ শুক্রবার (১৫ মার্চ)। আজ তার বয়স ২৬ বছর পূর্ণ হলো। ১৯৯৩ সালের এদিনে ভারতের মুম্বইয়ে জন্মগ্রহণ করেন তিনি। তার বাবা ভারতীয় চলচ্চিত্র পরিচালক মহেষ ভাট এবং মা অভিনেত্রী সোনি রাজদান। আলিয়ার বাবা-মা দুজনই হিন্দুধর্মালম্বি ছিলেন, তবে তাদের বিবাহের সময় দুইজনই ইসলাম ধর্মে দীক্ষা নেন। বাবা-মা অনুসারে, ভাট এবং তার বোন শাহীন নাস্তিক হিসেবে বেড়ে উঠেন। মায়ের দিক থেকে, ভাট কাশ্মীরি-জার্মান বংশপরিচয়ধারী এবং বাবার দিক থেকে, তিনি মূলত গুজরাটি বংশদ্ভুত। তার বোন পূজা ভাট একজন চলচ্চিত্র অভিনেত্রী ও নির্মাতা, এবং ভাই চলচ্চিত্র অভিনেতা রাহুল ভাট। অভিনেতা ইমরান হাশমী ও চলচ্চিত্র পরিচালক মোহিত সুরি তার চাচাতো ভাই এবং প্রযোজক মহেষ ভাট তার চাচা। ভাট ২০১১ সালে মুম্বইয়ের জামাবাই নার্সী বিদ্যালয় (আইবিডিপি) থেকে স্নাতক সম্পন্ন করেন।

আলিয়া ভাটের রূপালী পর্দায় অভিনয়ের সূচনা ঘটে ১৯৯৯ সালে শিশুশিল্পীর ভূমিকায়, তানুজা চন্দ্র পরিচালিত সংঘর্ষ নাট্য চলচ্চিত্রে অভিনয়ের মধ্য দিয়ে। এই চলচ্চিত্রে ভাটের সহ-অভিনয়শিল্পী ছিলেন, অক্ষয় কুমার ও প্রীতি জিন্টা, যেখানে ভাট জিন্টার শৈশব চরিত্রের ভূমিকায় অভিনয় করেছেন। চলচ্চিত্রটি বক্স অফিসে প্রায় 50 মিলিয়ন (US$ ৬,৯৫,৭৩০) আয় করে।

ভাট চলচ্চিত্রে সর্বপ্রথম প্রধান চরিত্রের ভূমিকায় অভিনয় করেন ২০১২ সালে, সিদ্ধার্থ মালহোত্রা ও বরুণ ধবনের বিপরীতে, করণ জোহর পরিচালিত স্টুডেন্ট অব দ্য ইয়ার চলচ্চিত্রে। এ চলচ্চিত্রে তিনি শানায়া সিংহানিয়া চরিত্র ভূমিকায় উপস্থিত হয়েছেন। চলচ্চিত্রে শানায়া একজন অত্যাধুনিক কিশোরী, যিনি ধাওয়ান চরিত্রের সঙ্গে সম্পর্কে লিপ্ত হন আবার অন্য চরিত্র মালহোত্রার প্রতিও এক পর্যায়ে আকৃষ্ট হয়ে পড়েন। স্টুডেন্ট অব দ্য ইয়ার ছিলো একটি বাণিজ্যিকভাবে সফল চলচ্চিত্র যা ২০১২ সালে বক্স অফিসে প্রায় ৭০০ মিলিয়ন (US$৯.৭৪ মিলিয়ন) আয় করে।

২০১৪ সালে ভাটের তিনটি চলচ্চিত্র মুক্তির মধ্য দিয়ে তিনি বলিউডে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে শুরু করেন। একই বছর তিনি রণদীপ হুদার বিপরীতে অভিনয় করেছেন ইমতিয়াজ আলী পরিচালিত হাইওয়ে পথচলচ্চিত্রে। এই চলচ্চিত্রে অপহরণ হওয়ার পর স্টকহোম সিনড্রোমে আক্রান্ত একটি কিশোরীর চরিত্রে ভাটের অভিনয় চলচ্চিত্র সমালোচকদের নিকট ইতিবাচক মন্তব্য অর্জন করে। চলচ্চিত্রটি বক্স অফিসে সাফল্য অর্জন করতে ব্যর্থ হলেও ভাট শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রীর জন্য ফিল্মফেয়ার সমালোচক পুরস্কার জিতেছেন এবং একই অনুষ্ঠানে শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রীর জন্য মনোনীত হয়েছিলেন।

২০১৪ সালের মার্চে অর্জুন কাপুরের বিপরীতে করন জোহর ও সাজিদ নাদিরওয়ালার যৌথ প্রযোজনায় দুই স্টেটস চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন ভাট। একই বছর এপ্রিলে মুক্তিপ্রাপ্ত এই চলচ্চিত্র চেতন ভগতের একই নামের উপন্যাসের চলচ্চিত্ররূপ। এখানে অনন্য স্বামীনাথম নামে একটি তামিল মেয়ের চরিত্রে অভিনয়ের জন্যে ভাট তামিল ভাষা শিখেছেন। চলচ্চিত্রটি শীর্ষ আয়কারী প্রযোজনা হিসেবে আত্মপ্রকাশ করে, যা বিশ্বব্যপী 1.7 বিলিয়ন (US$ ২৩.৬৫ মিলিয়ন) আয় করেছিলো।

ভাট ২০১৪ সালে জোহরের পরবর্তী হাম্পটি শার্মা কি দুলহানিয়া চলচ্চিত্রে কাজ করছেন স্টুডেন্ট অব দ্যা ইয়ার চলচ্চিত্রের সহ-শিল্পী বরুণ ধবনের বিপরীতে। এই চলচ্চিত্রে তিনি কাব্য প্রতাপ সিং নামে একটি পাঞ্জাবী মেয়ের চরিত্রে অভিনয় করেছেন, যে তার বিয়ের কয়েকদিন পূর্বে একজন অপরিচিতের সঙ্গে রোমান্টিক সম্পর্কে লিপ্ত হয়ে পড়েন। চলচ্চিত্রটি করন জোহর প্রযোজিত দিলওয়ালে দুলহানিয়া লে যায়েঙ্গে (১৯৯৫) চলচ্চিত্রের একটি সমর্থনসূচক কাজ হিসেবে উপস্থাপন করা হয়েছিলো। হাম্পটি শর্মা কি দুলহানিয়া ভাটের দ্বিতীয় চলচ্চিত্র যা বিশ্বব্যপী1 বিলিয়ন (US$১৩.৯১ মিলিয়ন) এর বেশি আয় করতে সক্ষম হয়েছিলো। এই চলচ্চিত্রের জন্য তিনি শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রীর জন্য ফিল্মফেয়ার সমালোচক পুরস্কার লাভ করেন, এবং শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রীর জন্য মনোনীত হন। তার এ সকল সাফল্য ২০১৪ সালে তাকে বক্স অফিস ইন্ডিয়া বছরের শীর্ষ বলিউড অভিনেত্রী হিসেবে আখ্যা লাভ করতে সহায়তা করে। এছাড়াও ২০১৪ সালে ভাট নারীদের নিরাপত্তা বিষয়ক গোয়িং হোম নামে একটি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রে কাজ করেছেন, যা পরিচালনা করেছিলেন বিকাশ ভাল।

২০১৫ সালে ভাট শাহিদ কপুরের বিপরীত বিবেক ভালের শানদার চলচ্চিত্রে কাজ করেছেন, যেখানে তিনি একজন অনিদ্রারোগীর ভূমিকায় অভিনয় করেন। তিনি অভিষেক চৌবে পরিচালিত উড়তা পাঞ্জাব, থ্রিলার চলচ্চিত্রে কাজ করছেন, যেখানে সহ-তারকা হিসেবে রয়েছেন শাহিদ কাপুর এবং কারিনা কাপুর খান।

২০১৬ সালে ভাট একজন প্রাণবন্ত যুবতীর চরিত্রে সিদ্ধার্থ মালহোত্রা এবং ফাওয়াদ খানের বিপরীতে অভিনয় করেছেন শাকুন বাত্রা পরিচালিত কাপুর অ্যান্ড সন্স চলচ্চিত্রে, যা ক্রিয়াহীন পরিবার সম্পর্কিত একটি নাট্য চলচ্চিত্র। চলচ্চিত্রটি বাণিজ্যিকভাবে সাফল্য এবং সমালোচকদের দ্বারা প্রশংসা অর্জন করতে সক্ষম হয়। একই বছর ভাট ভারতের পাঞ্জাব রাজ্যের একটি দারিদ্র্যপীড়িত বিহারী অভিবাসী চরিত্রে অভিনয় করেন উড়তা পাঞ্জাব চলচ্চিত্রে। এটি অভিষেক চৌবে পরিচালিত অপব্যবহার সম্পর্কিত একটি অপরাধ নাট্য চলচ্চিত্র। এই চরিত্রের কিছু উল্লেখযোগ্য অংশগুলি ভাট পূর্বে তার বিভিন্ন চলচ্চিত্রে সম্পাদন করেছিলেন এবং প্রস্তুতিস্বরুপ তিনি মাদকের ওপর প্রামান্যচিত্র দেখা এবং একটি বিহারি উপভাষায় কথা বলতে শিখেছিলেন। এই চলচ্চিত্রের সহ-অভিনেতা শাহিদ কপুর, কারিনা কাপুর এবং দিলজিৎ দোসাঞ্জ, বিতর্কের সৃষ্টি করেন যখন কেন্দ্রীয় চলচ্চিত্র অনুমোদন পর্ষদ উল্লেখ করে যে চলচ্চিত্রটি নেতিবাচকভাবে পাঞ্জাবের প্রতিনিধিত্ব করেছে এবং প্রেক্ষাগৃহে মুক্তির বিপক্ষে ব্যাপক সেন্সরশিপ দাবি করে। বোম্বে উচ্চ আদালত পরবর্তীতে একটি দৃশ্য কেটে বাদ দিয়ে প্রদর্শনীর জন্য ছাড়পত্র দেয়। চলচ্চিত্রে ভাটের অভিনয়-ক্ষমতা সমালোচকদের দ্বারা প্রশংসিত হয়েছিলো, বিভিন্ন মন্তব্যকারীদের বিশ্বাস যে এটি তার সেরা কর্মক্ষমতা ছিলো।

২০১৬ সালের জুনে ভাটের চারটি আসন্ন প্রকল্প রয়েছে। তিনি গৌরী সিন্ধে পরিচালিত ডিয়ার জিন্দেগি (২০১৬) নাট্য চলচ্চিত্রের চিত্রগ্রহণ সম্পন্ন করেছেন, যেখানে তিনি শাহরুখ খানের বিপরীতে অভিনয় করেছেন। চলচ্চিত্রটি বক্স অফিসে সাফল্য প্রমাণের পাশাপাশি, বিশ্বব্যপী1.39 বিলিয়ন (US$১৯.৩৪ মিলিয়ন) আয় করে। উড়দা পাঞ্জাব এবং ডিয়ার জিন্দেগি চলচ্চিত্র ভাটক একাধিক পুরষ্কার ও মনোনয়ন লাভ করতে সহায়তা করে; পূর্বে তিনি শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী বিভাগে স্ক্রিন পুরস্কার ও ফিল্মফেয়ার পুরস্কার লাভ করেন, এবং পরবর্তীতে, তিনি ফিল্মফেয়ারে একটি অতিরিক্ত শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রীর মনোনয়ন পেয়েছেন।

তিনি বরুণ ধাওয়ানের বিপরীতে বদ্রিনাথ কি দুলহানিয়া রোমান্টিক কমেডি চলচ্চিত্রের চিত্রগ্রহণ সম্পন্ন করেছেন, যা হাম্পটি শর্মা কি দুলহানিয়া চলচ্চিত্রের দ্বিতীয় কিস্তি হিসেবে বিবেচিত। পাশাপাশি রণবীর কাপুরের বিপরীতে অয়ন মুখার্জি পরিচালিত পরাশক্তিপ্রাপ্ত একজন মানুষ সম্পর্কিত একটি শিরোনামহীন প্রকল্প ফ্যান্টাসি চলচ্চিত্রে এবং সিদ্ধার্থ মালহোত্রার বিপরীতে মোহিত সুরি পরিচালিত আশিকি তিন রোমাক্টিক নাট্য চলচ্চিত্রে কাজ করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।

চলচ্চিত্রে আত্মপ্রকাশের পর ভাট বিভিন্ন পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠান যেমন, ফিল্মফেয়ার, স্ক্রিন, স্টারডাস্ট ইত্যাদিতে সঞ্চালন করেন এবং বরুণ ধাওয়ান ও সিদ্ধার্থ মালহোত্রার সঙ্গে হংকংয়ে আন্তর্জাতিক অনুষ্ঠানেও অংশ নেন।২০১৩ সালে, তিনি উত্তরখন্ডের বন্যা-প্রভাবিত ক্ষতিগ্রস্তদের জন্যে তহবিল সংগ্রহের অয়োজনে বরুণ ধাওয়ান, সিদ্ধার্থ মালহোত্রা, আদিত্য রায় কাপুর, শ্রদ্ধা কাপুর এবং হুমা কোরেশীর পাশাপাশি একটি বিশেষ অনুষ্ঠানে প্রদর্শনিতে অংশ নেন। তিনি বিড়াল এবং অন্যান্য গৃহহীন পশুদের জন্য একটি পিটা ক্যাম্পেইংয়ে মডেল হিসেবে কাজ করেন। ২০১৪ সালের জানুয়ারিতে তিনি অন্যান্য বলিউড অভিনেতা-অভিনেত্রীসহ ডাব্বু রাতনানির সঙ্গে কাজ করেন।

ভাট হাইওয়ে (২০১৪) চলচ্চিত্রে “সোহা সোহা” গানে প্লেব্যাক শিল্পী হিসেবে কণ্ঠ দিয়েছেন। চলচ্চিত্রটির সঙ্গীত পরিচালক এ আর রহমান তাকে তার সঙ্গীত বিদ্যালয়ে প্রশিক্ষণের জন্য আমন্ত্রণ জানিয়েছেন ২০১৪ সালে এছাড়াও, হাম্পটি শর্মা ক দুলহানিয়া চলচ্চিত্রে সুরকার শাহরিব-তোষির জন্য “সামঝাওয়া” গানের আনপ্ল্রাগ্ড সংস্করণে কণ্ঠ দিয়েছেন তিনি।

২০১৪ সালে, ভাট অনলাইন ফ্যাশন পোর্টাল জাবোঙ্গ.কম-এর সঙ্গে নারী পোশাকের তার নিজস্ব ধারা চালু করেন; তিনি এই সংগ্রহকে “খুব সহজ” এবং “খুব আমার” হিসেবে বর্ণনা করেন। তিনি এছাড়াও বিভিন্ন ব্র্যান্ডের পণ্যের প্রচার তারকা হিসেবে যেুক্ত রয়েছেন, যার মধ্যে কোকা-কোলা, গার্নিয়ার এবং মেইবিলাইন অর্ন্তভূক্ত। তথ্যসূত্র: উইকিপিডিয়া।