ক্রাইস্টচার্চে মসজিদে হামলায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৪৯

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, পিটিবিনিউজ.কম
নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে দুইটি মসজিদে জুমার নামাজের সময় বন্দুকধারীদের গুলিতে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৪৯ হয়েছে বলে জানান পুলিশ কমিশনার মাইক বুশ। এদের মধ্যে দুইজন প্রবাসী বাংলাদেশি রয়েছেন।

আজ শুক্রবার (১৫ মার্চ) স্থানীয় সময় বেলা দেড়টার দিকে ক্রাইস্টচার্চের মধ্যাঞ্চল ও শহরতলী লিনউডে এই হামলার ঘটনা ঘটে। অস্ট্রেলিয়ায় নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার এম সুফিউর রহমান দুই বাংলাদেশি নিহতের তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। আহতদের স্থানীয় কয়েকটি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

এদিকে, শহরের তৃতীয় একটি স্থানে গোলাগুলি হওয়ার ও স্ট্রিকল্যান্ড সেইন্টে একটি গাড়ি বোমা থাকার খবর প্রকাশিত হয়েছে। তবে হামলার ঘটনায় অল্পের জন্য বেঁচে গেছেন সফররত বাংলাদেশ জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা।

নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা আর্ডডার্ন জানিয়েছেন, মসজিদে হামলায় ৪৯ জন প্রাণ হারিয়েছেন। এদের মধ্যে ডিনস  অ্যাভনউয়ের  বুশ বলেন, ডিন্স এভিনিউর আল নূর মসজিদে ৪১ জন এবং লিনউড এলাকার অন্য মসজিদে সাত জন নিহত হয়েছেন। তিনি এটা নিউজিল্যান্ডের অন্যতম কালো দিন হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন।

অস্ট্রেলিয়ায় নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার এম সুফিউর রহমান বলেন, আমরা এখন পর্যন্ত দুইজন বাংলাদেশি নিহত হয়েছে বলে শুনেছি। তবে তাঁদের নাম–পরিচয় সম্পর্কে এখনো নিশ্চিত করে কিছু পাওয়া যায়নি। এ ছাড়া গুলিবর্ষণের ঘটনায় আহত দুই বাংলাদেশি স্থানীয় একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। আরো দুইজন বাংলাদেশি নিখোঁজ আছেন বলে জানতে পেরেছি।

হাইকমিশনার জানান, হতাহত ব্যক্তিদের সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে নিউজিল্যান্ড সরকারের সঙ্গে আমাদের নিয়মিত যোগাযোগ রয়েছে। তাঁদের নাম পরিচয় সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়ার পর গণমাধ্যমে জানানো হবে। তিনি বলেন, দুইটি জায়গায় হামলার ঘটনা ঘটেছে এবং কয়েকটি হাসপাতালে আহতদের নিয়ে যাওয়া হয়েছে। তাই বিস্তারিত জানাতে দুই থেকে তিন ঘণ্টা সময় লাগবে বরে মনে করছি।

নিউজিল্যান্ডে বাংলাদেশের কোনো দূতাবাস নেই। অস্ট্রেলিয়ায় নিযুক্ত বাংলাদেশ হাইকমিশনের মাধ্যমে সেখানকার দূতাবাসের কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়।

দেশটি পুলিশ জানিয়েছে, এখনো সক্রিয় থাকতে পারে অপর এক বন্দুকধারী। এক বিবৃতিতে, সকল দেশবাসীকে কোনো মসজিদের নিকটে না যাওয়ার নির্দেশনা দিয়েছে স্থানীয় পুলিশ কমিশনার মাইক বুশ।

এদিকে, এক হামলাকারী অনলাইনে একটি ভিডিও প্রকাশ করেছে বলে জানিয়েছে নিউজিল্যান্ড হেরাল্ড। ভিডিওটিতে এক হামলাকারী দাবি করেছে, এটি একটি সন্ত্রাসী হামলা। ধারণা করা হচ্ছে ওই বন্দুকধারী অস্ট্রেলিয়ান। সে গুলি চালানোর সময় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তা প্রচার করেছে।

পুরো ক্রাইস্টচার্চে বিরাজ করছে থমথমে অবস্থা। পুরো শহর অবরুদ্ধ করে রাখা হয়েছে। সকলকে নিজ নিজ ঘরের ভেতর থাকার নির্দেশনা দিয়েছে স্থানীয় পুলিশ বাহিনী।

এদিকে, এক সন্দেহভাজন বন্দুকধারীকে আটক করেছে পুলিশ। তবে অপর এক বন্দুকধারী সক্রিয় থাকতে পারে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

উল্লেখ্য, জুম্মার নামাজ পড়ার উদ্দেশ্যে ক্রাইস্টচার্চের মসজিদে যাচ্ছিলেন তামিম ইকবালসহ বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের একাধিক সদস্য। তবে মসজিদে প্রবেশের আগেই গুলির আওয়াজ শুনে দ্রুত ওই স্থান ত্যাগ করেন তারা।