চকবাজারের অগ্নিকাণ্ডে সাকিব-বাপ্পিসহ তারকাদের শোক

বিনোদন ডেস্ক, পিটিবিনউজ.কম
চকবাজারে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় আগুনে পুড়ে ৭০ জনের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে। শহীদ দিবসের আগের রাত্রের এই ভয়াবহ ঘটনায় শোকে মুহ্যমান সারাদেশ। শোকের ছায়া নেমে এসেছে শোবিজ অঙ্গনেও।

চকবাজারে ভয়াবহ এ ঘটনার খবর শুনেই ফেসবুকে ঢাকাই ছবির শীর্ষ নায়ক শাকিব খান লিখেছেন, ‘ঢাকার চকবাজারে গতকাল রাতে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় যারা মারা গেছেন তাদের প্রতি গভীর শোক প্রকাশ করছি। নিহতদের আত্মার শান্তি কামনার পাশাপাশি পরিবার ও পরিজনদের প্রতি গভীর সমবেদনা রইলো। সেই সঙ্গে আহতদের দ্রুত সুস্থতা কামনা করছি।’

ভয়াভহ এই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় শোক জানিয়ে বাপ্পি চৌধুরী ফেসবুকে লিখেন, ‘সারারাত ঘুমাতে পারিনি। আগুনে পুড়ে ৭০ জন মানুষের মৃত্যু। এ তালিকা বাড়ছে আরো। জীবন কতোটা অনিরাপদ আমাদের। মুহূর্তেই সব লণ্ডভণ্ড হয়ে যেতে পারে। ঢাকার চকবাজারে গত রাতে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে যারা মারা গেছেন তাদের প্রতি গভীর শোক। নিহতদের আত্মার প্রতি শান্তি কামনা করছি। তার পরিবারের প্রতি রইলো সমবেদনা। আমাদের উচিত রাষ্ট্রের পাশাপাশি আমাদের সবারই তাদের পাশে দাঁড়ানো। যারা আহত হয়েছেন তাদের যথাযথ চিকিৎসকার ব্যবস্থা করা। জীবন নিরাপদ হোক…।’

দুর্ঘটনা কবলিত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন চিত্রনায়িকা নিপূন। সেই সঙ্গে পুরান ঢাকাকে নতুন ঢাকা গড়ার আহবান জানিয়েছেন সরকারের কাছে। নিপুন লিখেছেন, ‘চকবাজারের সকল দুর্ঘটনা কবলিত পরিবারের প্রতি সমবেদনা। সরকারের কাছে অনুরোধ পুরান ঢাকাকে নতুন ঢাকা করার উদ্যোগ নেয়ার জন্য। তাহলে পুরান ঢাকার লোকেরা আমাদের মতো নিশ্চিন্ত জীবন পাবে।’

চিত্রনায়ক সাইমন সাদিক একাধিক অগ্নিকাণ্ডের ছবি পোস্ট করে তার ফেসবুকে লিখেছেন, ‘আমরা যদি একটু সচেতন হতাম তাহলে হয়তো শোকের মিছিল এতো বড় হতো না। যার যায় একমাত্র সে জানে সজন হারানোর যন্ত্রনা কতো বেদনার! ভাষার দিনে ভাষা খুঁজে পাচ্ছি না। আল্লাহ তাদের পরিবার কে এই ভয়াবহ শোক সহ্য করার শক্তি দান করুন।’

চিত্রনায়ক নিরব লিখেছেন, ‘ভাষার দিনে ভাষা হারিয়ে ভাষাহীন আমি। চিত্রনায়িকা কেয়া শোক প্রকাশ করে লিখেছেন, চকবাজার অগ্নিকাণ্ডে দগ্ধ হয়ে মারা গেছে অনেক নিরীহ প্রাণ। বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করছি ও শোকে ডোবা পরিবারের জন্য রইলো সমবেদনা।’

জালালের গল্প’ খ্যাত নির্মাতা আবু শাহেদ ইমন ফেসবুকে লিখেছেন, ‘প্রাইভেট কার বা সিএনজি-তে মেয়াদোত্তীর্ণ সিলিন্ডার ব্যবহার করে হাজার হাজার জীবন্ত বোমা নিয়ে আমরা ঘোরাফেরা করছি দিব্বি। নিচতলায় ক্যামিকেলের গোডাউন ভাড়া দিয়ে সংসার পরিজন নিয়ে আরামে ঘুমাচ্ছি দিনের পর দিন। প্রতিটি এলাকায় রাস্তার মোড়ে মোড়ে কোন রকম নিরাপত্তা ছাড়াই জীবন্ত বোমার সিলিন্ডারে রান্না হচ্ছে বছরের পর বছর। জনগণ নিজের ব্যক্তি স্বার্থে এই সব ক্ষুদ্র জাগতিক লাভের আশা ছাড়বেনা। কিন্তু সরকারের দায়িত্বপ্রাপ্ত বিভাগগুলোর অনতিবিলম্বে সকল ধরনের গ্যাস সিলিন্ডার আর আবাসিক ভবন থাকা ক্যামিকেলের গোডাউনের অবস্থান সনাক্ত করে এর নিরাপত্তা বিধানে শক্ত পলিসি তৈরি করতে হবে। নতুবা নিমতলি বা চকবাজার এই রকম আরও শত মৃত্যুর জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে।’

সংগীতশিল্পী পিন্টু ঘোষ শোক প্রকাশ করে বলেন, ‘এতোগুলো তাজা প্রাণ পুড়ে নিঃশেষ। শোকের ভাষা হারিয়ে গেছে। তাদের আত্মার শান্তি কামনা করছি।’

জনপ্রিয় টিভি অভিনেত্রী স্পর্শিয়াও শোক জানিয়ে স্ট্যাটাস দিয়েছেন ফেসবুকে। সেখানে তিনি লিখেন, ‘কেবল আগুনে পুড়ে মারা গেলেন ৭০টি তাজা প্রাণ! আরো নাকি বাড়ছে! প্রকৃতির কাছে কতোটা অসহায় আমরা। টিভিতে স্বজনদের আহাজারি দেখে কান্না সামলে রাখতে পারছি না। কেন এমন হয়? মানুষের কেন এমন নিষ্ঠুর মৃত্যু হবে? একদিনে এ দুর্ঘটনায় কতো মানুষের জীবন গেলো। স্বজন হারানোর এ ক্ষতি কীভাবে পূরণ হবে? চকবাজারে গত রাতে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে যারা মারা গেছেন তাদের প্রতি গভীর শোক। নিহতদের আত্মার প্রতি শান্তি কামনা করছি। যারা আহত হয়েছেন তাদের দ্রুত চিকিৎসা হোক।’

লাক্সতারকা উর্মিলা শ্রাবন্তী কর লিখেছেন, এ মুহূর্তে যারা ঢাকা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার বা এর আশেপাশে অবস্থান করছেন তারা দয়া করে ঢাকা মেডিকেলে চলে যান। চকবাজার অগ্নিকাণ্ডে আহতদের জন্য প্রচুর রক্ত লাগছে। চলুন রক্ত দিয়ে অর্জিত এই ভাষা দিবসে রক্ত দিয়ে জীবন বাঁচাই। সবার কাছে অনুরোধ করছি।

অভিনেত্রী শানৈরী দেবী শানু লিখেন, ‘এমন লাশের মিছিল তো চাই নি। জীবন পোড়া গন্ধে ভারী হয়ে আছে একুশ। নিঃশ্বাস বন্ধ হয়ে আসছে পোড়া শোকের গন্ধে হয়ত জীবন আবার চলবে নতুন কোন ছন্দে!আহারে জীবন!’

চলচ্চিত্র অভিনেতা সান আরাফ লিখেছেন, ‘চকবাজারের অগ্নিকাণ্ডে নিহতদের আত্মার শান্তি কামনা করছি। আল্লাহ তাদের তুমি স্বর্গবাসী করো, আমিন। অভিনেতা শামীম হাসান সরকার লিখেছেন, আমরা শোকাহত।’

নৃত্যশিল্পী ও অভিনেত্রী সিনথিয়া ইয়াসমিন লিখেছেন, ‘নিমতলী ট্রাজেডি, রানা প্লাজা ট্রাজেডি, চকবাজার ট্রাজেডি। আর কত ট্রাজেডি দরকার সচেতন এবং সাবধান হওয়ার জন্য। আল্লাহ এমন মৃত্যু আপনি আমার শত্রুকেও দিয়েন না। এমন মৃত্যু মেনে নেওয়া যায়না। এই কষ্ট এই আর্তনাদ সহ্য করার মতোনা। আল্লাহ রক্ষা করার মালিক আপনি, আপনি রহম করেন আমাদের উপর। সকল বিদেহী আত্মার রুহের মাগফেরাত কামনা করছি। আল্লাহ আপনি মৃতের স্বজনদের এই শোক সহ্য করার তৌফিক দান করেন।’