ডাকসু নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা, ভোটগ্রহণ ১১ মার্চ

নিজস্ব প্রতিবেদক, পিটিবিনিউজ.কম
বিভিন্ন ছাত্র সংগঠনের বিরোধিতার মধ্যে ভোটকেন্দ্র হলে রেখেই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হয়েছে। আজ সোমবার (১১ ফেব্রুয়ারি) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবনে এই তফসিল ঘোষণা করেন ডাকসু নির্বাচনের প্রধান রিটার্নিং কর্মকর্তা অধ্যাপক ড. এস এম মাহফুজুর রহমান। এ সময় অন্যদের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের হলগুলোর প্রাধ্যক্ষ, প্রক্টর ও নির্বাচন পরিচালনায় নিযুক্ত রিটার্নিং কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। উপস্থিত ছিলেন, ডাকসু নির্বাচন ঘিরে গঠিত বিভিন্ন কমিটির সদস্যরাও৷

ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, আগামী ২ মার্চ পর্যন্ত মনোনয়নপত্র জমা দেয়া যাবে। যাচাই-বাছাই শেষে চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করা হবে ৩ মার্চ। এরপর ৫ মার্চ ভোটার তালিকা প্রকাশ করা হবে। ভোটগ্রহণ করা হবে ১১ মার্চ। ওইদিন হলগুলোতে স্থাপিত ভোটকেন্দ্রে সকাল ৮টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত পরিচয়পত্র দেখিয়ে ভোটাররা ভোট দিতে পারবেন।

হল সংসদ নির্বাচনের তফসিলও আবাসিক হলগুলোর নোটিশ বোর্ডে টাঙিয়ে দেয়া হচ্ছে। চূড়ান্ত হওয়া ডাকসুর গঠনতন্ত্র ও আচরণবিধি অনুযায়ীই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। অর্থাৎ,ভোটকেন্দ্র হচ্ছে আবাসিক হলেই।

ডাকসুর খসড়া ভোটার তালিকা প্রকাশ করা হবে আজই। আবাসিক হলগুলোর নোটিশ বোর্ড ও www.ducsu.du.ac.bd ওয়েবসাইটে এ তালিকা প্রকাশ করা হবে।

এর আগে গত ২৩ ফেব্রুয়ারি ডাকসু ও হল সংসদের নির্বাচনের ভোটগ্রহণের তারিখ নির্ধারণ করে কর্তৃপক্ষ। ডাকসু ও হল সংসদ নির্বাচনের গঠনতন্ত্রের ৮(ই) ধারা অনুযায়ী ডাকসুর সভাপতি হিসেবে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান নির্বাচনের এই তারিখ ও সময় নির্ধারণ করেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) ১৯২২-২৩ শিক্ষাবর্ষে প্রতিষ্ঠিত হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের শুরুতে এর নাম ছিলো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র সংসদ (ডাসু)। সর্বশেষ ১৯৯০-৯১ সেশনের জন্য ডাকসুর ভিপি ও জিএস পদে যথাক্রমে নির্বাচিত হন আমানউল্লাহ আমান ও খায়রুল কবির খোকন।

দীর্ঘদিন পর এবার ডাকসু নির্বাচনের উদ্যোগ নেওয়ার সঙ্গে থেকে ভোটগ্রহণ কোথায় হবে, তা নিয়ে ছাত্র সংগঠনগুলোর মধ্যে মতভেদ দেখা দেয়। আগের মতো হলগুলোতে ভোটকেন্দ্র স্থাপনে বিশ্ববিদ্যালয়ের সিদ্ধান্তকে ছাত্রলীগ স্বাগত জানালেও ছাত্রদল ও বাম সংগঠনগগুলো একাডেমিক ভবনে ভোটকেন্দ্র স্থাপনের দাবি তোলে।

তিন দশক পর আদালতের নির্দেশে ডাকসু নির্বাচনের উদ্যোগ নিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। সর্বশেষ ডাকসু নির্বাচন হয়েছিলো ১৯৯০ সালে, তারপর আর নির্বাচন হয়নি। ডাকসু নির্বাচন চেয়ে আদালতে রিট আবেদন হয়েছিল, তাতে ছয় মাসের মধ্যে নির্বাচন আয়োজনের নির্দেশনা আসে গত বছর হাইকোর্ট থেকে। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের আবেদনে ওই আদেশ স্থগিত করেছিলো আপিল বিভাগের চেম্বার আদালত। আপিল বিভাগ গত ৬ জানুয়ারি সেই স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার করে নিলে নির্বাচন আয়োজনের বাধা কাটে। এরপর নির্বাচনের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যাংকিং অ্যান্ড ইন্সুরেন্স বিভাগের অধ্যাপক ড. এস এম মাহফুজুর রহমানকে প্রধান রিটার্নিং কর্মকর্তা এবং আরও পাঁচজনকে রিটার্নিং কর্মকর্তা নিয়োগ দেয়া হয়।