মনমোহনের জীবনী নিয়ে চলচ্চিত্র, ট্রেলারেই তোলপাড়

বিনোদন ডেস্ক, পিটিবিনিউজ.কম
বর্তমানে বলিউডে যেন জীবনীভিত্তিক চলচ্চিত্র নির্মাণের হিড়িক চলছে। অ্যাথলেট মিলখা সিং, নারী বক্সার মেরি কম, ক্রিকেটার মোহাম্মদ আজহারউদ্দীনের বায়োপিক ইতিমধ্যে অনেকেই দেখে ফেলেছেন। এমনকি বর্তমানে ভারতের ওয়ানডে ক্রিকেটের অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনিকে নিয়েও ছবি নির্মাণ করা হচ্ছে। এই তালিকায় আরো একটি নাম যুক্ত হয়ে। ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংকে নিয়ে চলচ্চিত্র নির্মাণ করা হবে, এমন ঘোষণা হয়েছিলো গত বছরে। কথা মতো সেটাই হলো। ২০১৯ সালের ১১ জানুয়ারি মুক্তি পাচ্ছে মনমোহন সিংকে নিয়ে নির্মিত বায়োপিক ‘দ্য অ্যাক্সিডেন্টাল প্রাইম মিনিস্টার।

কিন্তু তার আগে ট্রেলার প্রকাশ করেই ভারতজুড়ে রীতিমত তোলপাড় ফেলে দিয়েছে ‘দ্য অ্যাক্সিডেন্টাল প্রাইম মিনিস্টার’। বৃহস্পতিবার মুক্তি পেয়েছে ছবির অফিসিয়াল ট্রেলার। আর এর পর পরই শুরু হয়েছে এ নিয়ে বিতর্ক।

মনমোহনের জীবনী নিয়ে নির্মিত ছবির ট্রেলার প্রকাশের পরই ভারতে শুরু হয়েছে বিজেপি ও কংগ্রেস-এর মধ্যে তুমুল বাকবিতণ্ডা! ভারতীয় গণমাধ্যম বলছে, লোকসভা ভোটের কথা মাথায় রেখে শাসক দল বিজেপি যেমন এই সিনেমাকে প্রচারের হাতিয়ার করেছে, ঠিক তেমনই রুখে দাঁড়িয়েছে কংগ্রেস।

কংগ্রেসের দাবি, সর্ব সাধারণের মুক্তির আগে সিনেমাটি তাদের জন্য বিশেষ প্রদর্শনের ব্যবস্থা করা হোক। আপত্তিকর কিছু থাকলে তা কাটছাঁট করে দেখানো হোক।

ট্রেলার প্রকাশের পর ছবিটির বিরুদ্ধে তথ্য বিকৃতির অভিযোগ তুলেছে কংগ্রেস। এমন অভিযোগেরও সত্য মেলে ট্রেলারে। কারণ সেখানে দেখানো হয়েছে একটানা ১০ বছর এক পরিবার কীভাবে দেশ শাসনের মধ্য দিয়ে ফায়দা তুলেছে, এই সিনেমা তারই কাহিনি।

অন্যদিকে কংগ্রেসের জন্য বিশেষ প্রদর্শনীর আয়োজনের প্রস্তাব নাকচ করে দিয়েছে ছবির সঙ্গে সংশ্লিষ্টরা।

মনমোহন সিং প্রধানমন্ত্রী থাকাকালীন তার উপদেষ্টা হিসেবে ছিলেন সাংবাদিক সঞ্জয় বারু। তাঁর লেখা বই ‘দ্য অ্যাক্সিডেন্টাল প্রাইম মিনিস্টার’ এর ওপর ভিত্তি করেই এই সিনেমা। সিনেমার নামও অপরিবর্তিত রাখা হয়েছে। তাঁর দশ বছরের শাসনের সময় বিভিন্ন বিষয়ে মনমোহন সিংয়ের অবস্থান, তাঁর ওপর সোনিয়ার প্রভাব, বিভিন্ন দুর্নীতি, রাহুল গান্ধীর মনোভাব ইত্যাদির উল্লেখ রয়েছে। ছবিটিতে মনমোহন সিংয়ের ভূমিকায় অভিনয় করেছেন অভিনেতা অনুপম খের।