আইপিএল নিলামের প্রথম রাউন্ডে অবিক্রিত মুশফিক

ফাইল ছবি।

স্পোর্টস ডেস্ক পিটিবিনিউজ.কম
বাংলাদেশের হয়ে এখন পর্যন্ত ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (আইপিএল) প্রতিনিধিত্ব করেছেন আব্দুর রাজ্জাক, মোহাম্মদ আশরাফুল, মাশরাফি বিন মুর্তজা, তামিম ইকবাল, সাকিব আল হাসান ও মুস্তাফিজুর রহমান। এই তালিকায় এবার যোগ হওয়ার সম্ভাবনায় ছিলো উইকেট কিপার-ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিম। নিলামের তালিকায় নাম আছে অলরাউন্ডার মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের। আইপিএলে বাংলাদেশের নিয়মিত মুখ সাকিব আল হাসানকে ছাড়েনি তার দল সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের নিষেধাজ্ঞায় আইপিএলে নাম দেননি মুস্তাফিজুর রহমান।

তবে এবারের আসরের নিলামে অবিক্রিত থেকে গেছেন বাংলাদেশের অভিজ্ঞ উইকেটরক্ষক ও ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিম। দল পাননি প্রোটিয়া ফাস্ট বোলার ডেইল স্টেইনও।

বাংলাদেশ থেকে এবার আইপিএল নিলামের তালিকায় ছিলেন মুশফিক-মাহমুদউল্লাহ। কিন্তু তাদের মধ্যে আগে নিলামে নাম আসা মুশফিককে কেনার আগ্রহ দেখায়নি কোনো দলই। তার ভিত্তিমূল্য ছিলো ৫০ লাখ রুপি। উইকেটরক্ষক ক্যাটাগরিতে আরো বাদ পড়েছেন লঙ্কান উইকেটরক্ষক কুশাল মেন্ডিস।

একইদিন নিলামে অবিক্রিত থেকে গেছেন সাবেক কিউই অধিনায়ক ব্র্যান্ডন ম্যাককালাম, ভারতীয় অলরাউন্ডার যুবরাজ সিং, প্রোটিয়া ওপেনার হাশিম আমলা, অজি ব্যাটসম্যান শন মার্শ, প্রোটিয়া পেসার মরনে মরকেল, লঙ্কান অলরাউন্ডার অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুসের মতো তারকারা।

স্যাম কুরানকে ৭.২ কোটি রুপিতে কিনেছে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব। এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি দামে বিক্রি হওয়া বিদেশি খেলোয়াড় বলা হচ্ছে তাকেই। প্রোটিয়া ব্যাটসম্যান কলিম ইনগ্রামকে ৬.৪ কোটি রুপিতে দলে টেনেছে দিল্লী।

বিদেশি কোটায় দল পেয়েছেন উইন্ডিজ অধিনায়ক কার্লোস ব্র্যাথওয়েট। তাকে পাঁচ কোটি রুপিতে দলে নিয়েছে কলকাতা। চমক দেখিয়েছেন উইন্ডিজ ব্যাটসম্যান শিমরন হেটমায়ার। তাকে ৪.২০ কোটিতে কিনে নিয়েছে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরু। তবে ৭৫ লাখ ভিত্তি মূল্যের কার্লোস ব্র্যাথওয়েটকে ৫ কোটিতে কিনে আসল চমক দেখিয়েছে কলকাতা নাইট রাইডার্স।

অলরাউন্ড ক্যাটাগরিতে ব্র্যাথওয়েট ছাড়াও দল পেয়েছেন অজি তারকা ময়েজেস হ্যানরিকস। তাকে ১ কোটি রুপিতে কিনেছে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব। ভারতীয় স্পিনিং অলরাউন্ডার আক্সার প্যাটেলকে পাঁচ কোটি রুপিতে দলে ভিড়িয়েছে দিল্লী ক্যাপিটালস। দল পাননি ইংলিশ অলরাউন্ডার ক্রিস ওকস, ক্রিস জর্ডান।

উইকেটরক্ষক ক্যাটাগরিতে ২.২০ কোটি রুপিতে ইংলিশ উইকেটরক্ষক জনি বেয়ারস্টোকে কিনে নিয়েছে সানরাইজার্স হায়দ্রাবাদ। উইন্ডিজ উইকেটরক্ষক নিকোলাস পুরানকে ৪.২০ কোটিতে কিনেছে পাঞ্জাব। এদিকে ভারতীয় উইকেটরক্ষক ঋদিমান সাহাকে ১.২ কোটিতে দলে নিয়েছে হায়দ্রাবাদ।

এদিন আরেক চমক হয়ে এসেছেন ভারতীয় পেসার উনাদকাট। তিন দলের কাড়াকাড়ি শেষে ৮.৪ কোটিতে তাকে দলে টেনেছে রাজস্থান রয়্যালস। বোলার ক্যাটাগরিতে পেসার ইশান্ত শর্মাকে ১.১ কোটিতে কিনেছে দিল্লী। আর ভিত্তি মূল্য দুই কোটিতেই মুম্বাইয়েই ফিরেছেন লঙ্কান পেস তারকা লাসিথ মালিঙ্গা।

ভারতীয় পেসার মোহাম্মদ শামিকে ৪.৮ কোটি রুপিতে দলে টেনেছে পাঞ্জাব। আরেক পেসার বরুন অ্যারনকে ২.৪ কোটিতে কিনেছে রাজস্থান। আরেক ভারতীয় পেসার মোহিত শর্মাকে ৫ কোটি রুপিতে কিনেছে চেন্নাই সুপার কিংস। তবে সবচেয়ে বড় চমক একেবারে নতুন এক প্রতিভা বরুন চক্রবর্তী। তাকে নিয়ে রীতিমত কাড়াকাড়ি পড়ে গেছে। তবে বাকিদের পেছনে ফেলে ৮.৪ কোটি রুপিতে তাকে দলে টেনেছে পাঞ্জাব। তার ভিত্তিমূল্য ছিলো মাত্র ২০ লাখ!

অন্যদিকে বিপুল দর পেয়েছেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের ক্রিকেটাররা। ৫০ লাখ রুপি বেস প্রাইস ছিলো ওয়েস্ট ইন্ডিজের হেটমায়ারের। কলকাতা নাইট রাইডার্স, রাজস্থান রয়্যালস, দিল্লি ক্যাপিটালস তাকে পাওয়ার চেষ্টা করেছিলো। কিন্তু শেষ পর্যন্ত হেটমায়ারকে ৪.২ কোটি রুপিতে কিনলো রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স। তার সতীর্থ ব্রেথওয়েটকে পাঁচ কোটি টাকায় কিনেছে কেকেআর। ২০১৬ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের তারকাকে নিয়ে জোর দরযুদ্ধ হয় দীনেশ কার্তিকের নেতৃত্বাধীন কেকেআর ও কিংস ইলেভেন পঞ্জাবের।

ক্যারিবীয় উইকেটরক্ষক নিকোলাস পূরণও চড়া দর পেয়েছেন। তিনি টি-টোয়েন্টির আবিষ্কার, এখনো টেস্ট খেলেননি। তবে ৭৫ লাখ টাকা বেস প্রাইস দিয়ে শুরু করে তিনি দাম পেলেন ৪.২০ কোটি রুপি। তাকে কিনলো কিংস ইলেভেন পঞ্জাব। শ্রীলঙ্কার পেসার লাথিস মালিঙ্গা গত বছর অবিক্রীত ছিলো। এবছর দুই কোটিতে তাকে কিনেছে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স।