হামলার প্রতিবাদে লাগাতর অবস্থান লতিফ সিদ্দিকীর

ফাইল ছবি।

টাঙ্গাইল সংবাদদাতা, পিটিবিনিউজ.কম
আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে টাঙ্গাইল-৪ (কালিহাতী) আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী ও আওয়ামী লীগের বহিস্কৃত নেতা আব্দুল লতিফ সিদ্দিকীর নির্বাচনী প্রচারণার সময় গাড়িবহরে হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। আজ রোববার (১৬ ডিসেম্বর) সকালে উপজেলার গোহালিয়া ইউনিয়নের সড়াতৈল এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এই হামলার প্রতিবাদে রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নিয়েছেন লতিফ সিদ্দিকী। হামলার জন্য নিজের এক সময়ের দল আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদেরই দায়ী করেছেন তিনি। দুপুর ২টার দিকে ভাঙচুর হওয়া কয়েকটি গাড়ি নিয়ে জেলা প্রশাসক ভবনে গিয়ে অবস্থান নেন ট্রাক প্রতীকের প্রার্থী ও সাবেক মন্ত্রী লতিফ সিদ্দিকী। তার সঙ্গে সমর্থকরাও রয়েছেন।

সাবেক মন্ত্রী লতিফ সিদ্দিকী সাংবাদিকদের বলেছেন, যে পর্যন্ত নির্বাচনের সুষ্ঠু পরিবেশ তৈরি না হবে, ততক্ষণ পর্যন্ত আমি অবস্থান চালিয়ে যাবো।

আগামী ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠেয় একাদশ সংসদ নির্বাচনে অন্য সব জেলার মতো টাঙ্গাইলের জেলা প্রশাসকও জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তার দায়িত্ব পালন করছেন।

লতিফ সিদ্দিকী বলেন, কালিহাতীর গোহালিয়াবাড়ী ইউনিয়নের সরাতৈল এলাকায় তার গাড়িবহরে হামলা হয়। তিনি বলেন, প্রতিদিনের মতোই আজ সকালে বাসা থেকে বের হই। দুপুরের দিকে কালিহাতীর গোহালিয়া বাড়ি এলাকায় যাওয়ার সময় সেখানকার আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা হামলা চালায়। হামলায় ইটের আঘাতে নিজের কয়েকজন সমর্থক এবং চারটি গাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয় বলে জানান লতিফ সিদ্দিকী।

এই আসনের দীর্ঘদিনের সংসদ সদস্য হামলার জন্য নৌকা প্রতীকের প্রার্থী হাসান ইমাম খান সোহেল হাজারীকে দায়ী করেছেন। তবে সোহেল হাজারীর কোনো বক্তব্য তাৎক্ষণিকভাবে পাওয়া যায়নি। লতিফ সিদ্দিকী ২০১৪ সালে মন্ত্রিত্ব ও সংসদ সদস্যপদ হারানোর পর কালিহাতীতে উপনির্বাচনে বিজয়ী হন আওয়ামী লীগের সোহেল হাজারী।ওই বছর সেপ্টেম্বর মাসে নিউইয়র্কে হজ ও তাবলিগ জামাত নিয়ে মন্তব্যের পর আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কৃত হন দলের তৎকালীন সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য লতিফ সিদ্দিকী।

তিনি ১৯৭০ সালের নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে প্রাদেশিক পরিষদের সদস্য হন তিনি। এরপর ১৯৭৩, ১৯৯৬ ও ২০০৮ সালের নির্বাচনে জয়ী হয়ে মন্ত্রী হন। ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির নির্বাচনে তিনি বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় এমপি নির্বাচিত হন। তার ভাই আবদুল কাদের সিদ্দিকী আওয়ামী লীগ ছেড়ে কৃষক, শ্রমিক, জনতা লীগ গঠন করে রাজনীতিতে সক্রিয়। তিনি খেলাপি ঋণের কারণে প্রার্থী হতে না পারায় তার মেয়ে কুড়ি সিদ্দিকী এবার টাঙ্গাইল-৮ আসনে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে লড়াইয়ে নেমেছেন।