সাদমান-সাকিবের ফিফটিতে চালকের আসনে বাংলাদেশ

স্পোর্টস ডেস্ক, পিটিবিনিউজ.কম
ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দ্বিতীয় টেস্টে অভিষিক্ত সাদমান ইসলাম ও অধিনায়ক সাকিব আল হাসানের অর্ধশত রানের সুবাদে প্রথম দিন শেষ বাংলাদেশের সংগ্রহ ৫ উইকেটে ২৫৯ রান। দিন শেষে ৬৯ রানের জুটি গড়ে অপরাজিত সাকিব-মাহমুদউল্লাহ।

মিরপুর টেস্টে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয় বাংলাদেশ। সৌম্যকে নিয়ে অভিষেক টেস্টে ওপেন করতে নামেন সাদমান ইসলাম। ভালো শুরু করেন তারা। কিন্তু সাদমানকে রেখে দলের ৪২ রানে ফিরে যান সৌম্য। তিনি করেন ১৯ রান। এরপর নিজের ২৯ রানে ভুল শটে উইকেট বিলান মুমিনুল। দলের রান তখন ৮৭। সেখান থেকে সাদমান ও মিঠুন ৬৪ রানের জুটি গড়ে রান নিয়ে যান ১৫১ তে। সেট হয়ে ২৯ রানে ফেরেন মিঠুন। তার আউটের পর ১৬১ রানে নিজের ৭৬ রানে বিশুর বলে কাটা পড়েন সাদমান। ভরসা দিতে পারেননি মুশফিকও। তিনি ফেরেন মাত্র ১৪ রানে। ফেরার আগে টেস্টে নিজের চার হাজার রান পূর্ণ করেন তিনি।

সেখান থেকে সাকিব এবং মাহমুদুল্লাহ দারুণ এক জুটি গড়ে দিন শেষ করেন। তারা গড়েন ৬৯ রানের জুটি। ওয়েস্ট ইন্ডিজের স্পিনাররা এ সময় বেশ ঘূর্ণি দেখিয়েছে সাকিবদের। কিন্তু তারা দু’জন ছিলেন অবিচল। সাকিব করেছেন ৫৫ রান। তার সঙ্গে মাহমুদুল্লাহ দ্বিতীয় দিন শুরু করবেন ৩১ রান নিয়ে। এছাড়া ব্যাট করার জন্য বাংলাদেশ দলে আছেন লিটন দাস এবং মেহেদি মিরাজ। প্রথম ইনিংসে তাই ভালো সংগ্রহের আশা বাঁচিয়ে রাখলো বাংলাদেশ। প্রথম দিন শেষে উইন্ডিজের হয়ে দেবেন্দ্র বিশু তার লেগ স্পিনের ঘূর্ণিতে দুই উইকেট নিয়েছেন। এছাড়া রোস্টন চেজ, কেমার রোচ এবং শারমন লেইস নিয়েছেন একটি করে উইকেট।

স্বাগতিক বাংলাদেশ এ ম্যাচে প্রথমবারের মতো টেস্টে কোনো পেসার ছাড়া মাঠে নেমেছে। তাই চট্টগ্রাম টেস্টের দলে থাকা একমাত্র পেসার মুস্তাফিজুর রহমান নেই ঢাকা টেস্টের দলে। তার জায়গায় দলে ঢুকেছেন লিটন দাস। পেসার কমিয়ে ব্যাটসম্যান বাড়িয়েছে বাংলাদেশ দল। চোট শঙ্কায় থাকা মুশফিক আছেন দলে। তাই উইকেটরক্ষক হিসেবে দেখা যাবে লিটন দাসকে। ঢাকা টেস্টের উইকেট স্পিন সহায়ক। বাংলাদেশ দলে চারজন নিয়মিত স্পিনার আছে।

বাংলাদেশ-ওয়েস্ট ইন্ডিজ শেষ টেস্ট
বাংলাদেশ প্রথম ইনিংস: ২৫৯/৫; সাদমান-৭৬, সৌম্য-১৯, মুমিনুল-২৯, মিঠুন-২৯, সাকিব-৫৫ (অপ.), মুশফিক-১৪, মাহমুদুল্লাহ-৩১ (অপ.)।

বিশু-৬৯/২, কেমার রোচ-৩৮/১, লেইস-৩৫/১, রোস্টন চেজ-৬১/১।