এলাকায় উন্নয়নে অবদান রাখতে চায় যুবদলের সাধারণ সম্পাদক সুজন

এস এম রাজ, বাগেরহাট প্রতিনিধি, পিটিবিনিউজ.কম
বাগেরহাট-২ (বাগেরহাট সদর ও কচুয়া) আসনে বিএনপির মনোনয়নপ্রত্যাশীদের মধ্যে অন্যতম জেলা যুব দলের বর্তমান সাধারণ সম্পাদক ও জেলা ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি সুজা উদ্দিন মোল্লা সুজন। বিএনপির তৃণমূলের কর্মী থেকে জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হওয়া মো: সুজন মোল্লার রাজনৈতিক জীবন ছিলো বৈচিত্রময়। দলের সুদিনে যেমন নেতা-কর্মীদের দেখেছেন নিজের ভাইয়ের মত ঠিক তেমনি দলের দূর দিনে দলীয় নেতা-কর্মীদের পাশে দাঁড়িয়েছেন দুই দিনের কান্ডারি হয়ে। শুধু বিএনপি করার কারণে প্রতিপক্ষের হয়রানিমূলক মামলা ও রাজনৈতিক মামলায় জর্জরিত মো: সুজন মোল্লাকে নিজ এলাকা ছেড়ে পালিয়ে বেড়াতে হয়েছে দীর্ঘদিন।

বাগেরহাট জেলা যুবদলের সভাপতি সুজা উদ্দিন মোল্লা সুজন বলেন, ষষ্ঠ জাতীয় সংসদ নির্বাচন ১৯৯১ সালে মরহুম এএসএম মোস্তাফিজুর রহমানের পক্ষে স্কুল ছাত্রদল কর্মী হিসেবে আমার রাজনৈতিক কার্যক্রমের শুরু হয়। পরবর্তিতে ছাত্রদল পৌর ৯ নং ওয়ার্ড কমিটি সভাপতি, খানজাহান আলী কলেজ ছাত্রদলের সভাপতি, সরকারি পিসি কলেজ ছাত্রদলের সভাপতি, ছাত্রদল পৌর কমিটির সভাপতি, ছাত্রদল জেলা কমিটির প্রচার সম্পাদক, ছাত্রদল জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক এবং পরে সভাপতি নির্বাচিত হই।

তিনি বলেন, জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সংসদের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য হওয়ার সৌভাগ্য হয়েছে আমার। বর্তমানে বাগেরহাট জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছি। আওয়ামী লীগ সরকারের হামলা ও মামলার মধ্যেও দলীয় সকল কার্যক্রম পরিচালনা, দলীয় নেতা-কর্মীদের খোজ খবর রাখা, তাদের সুখে-দুখে পাশে থাকাই আমার ব্রত। আমি পারিবারিক, সামাজিক ও অর্থনৈতিকভাবে সমৃদ্ধ পরিবারের সন্তান। আমি দলীয় নেতা-কর্মীর ভালবাসায় সিক্ত। বর্তমান বাগেরহাট জেলা কমিটির সাংগঠনিক অদক্ষতা, অদূরদর্শিতার কারণে অনেক দলীয় কর্মী সমর্থক নিস্ক্রিয়ভাবে রয়েছে। বাগেরহাট-২ আসনে আমি নিজেকে দলীয় প্রার্থী হবার যোগ্য মনে করছি। আমি দলীয় প্রার্থী মনোনীত হলে দলীয় সকল ভেদাভেদ ভুলে সকল কর্মী-সমর্থকদের একমঞ্চে আনতে সক্ষম হবো। তাদের সঙ্গে নিয়ে নির্বাচন কার্যক্রম পরিচালনা করলে বাগেরহাট-২ হারানো আসন পুনরুদ্ধার করতে সক্ষম হবো ইনশাহ আল্লাহ।

মোল্লা সুজন বলেন, নির্বাচনে আমি বিজয়ী হলে বাগেরহাট-২ আসনে ধর্মীয় ও রাজনৈতিক সকল মানুষের সহাবস্থানের পরিবেশ তৈরি করবো। সন্ত্রাস ও মাদকমুক্ত সমাজ গঠনে কার্যকারী পদক্ষেপ গ্রহণ ও সকল জনগোষ্ঠির মধ্য সাম্য, সৌহার্দ্য ও মৈত্রীর সেতুবন্ধন গড়ে তোলা। সমবন্টন ও ন্যায়পথ অবলম্বন করে নির্বাচনী এলাকায় সুষম উন্নয়ন করা। বাগেরহাটে সকল সরকারি প্রতিষ্ঠানকে দুর্নীতিমুক্ত করা। অন্ন, বস্ত্র, বাসস্থান, চিকিৎসা, শিক্ষার উন্নয়নে বিভিন্ন বাস্তবসম্মত কর্মসূচী প্রণয়ন করা। বাগেরহাটকে একটি অত্যাধুনিক মডেল শহরে রূপান্তর করা।