লাঞ্চের আগে সাজঘরে নড়বড়ে ইমরুল

স্পোর্টস ডেস্ক, পিটিবিনিউজ.কম
সৌম্য সরকারের বিদায়ের হোঁচট পাওয়ার পর মুমিনুল হক ও ইমরুল কায়েসের জুটিতে ঘুরে দাঁড়ায় বাংলাদেশ। কিন্তু শুরু থেকেই নড়বড়ে ছিলেন ইমরুল কায়েস। ব্যক্তিগত ৩ ও ১৬ রানে লাইফ পেয়েছিলেন। দুইবার জীবন পেয়েও খুব বেশিদূর এগোতে পারলেন না তিনি। প্রথম সেশনের শেষদিকে জোমেল ওয়ারিক্যানের বলে সুনিল আমব্রিসকে ক্যাচ দিয়ে ফিরলেন বাঁহাতি ওপেনার। ফেরার আগে ৫ চারে করেন ৪৪ রান। হাফসেঞ্চুরি করেন মুমিনুল।

শেষ খবর পর্যন্ত প্রথম সেশন শেষে ২ উইকেটে ১০৫ রান করেছে বাংলাদেশ। অপর প্রান্তে দারুণ খেলছেন মুমিনুল হক। ইনিংসের তৃতীয় বলেই ফিরে গিয়েছিলেন সৌম্য সরকার। শক্ত হাতে ইমরুলকে নিয়ে শুরুর ধাক্কা সামলে ওঠেন তিনি। সূচনালগ্ন থেকেই আত্মবিশ্বাসী দেখা যাচ্ছে তাকে। ইতিমধ্যে ক্যারিয়ারে ১৩তম টেস্ট ফিফটি তুলে নিয়েছেন পয়েট অব ডায়নামো।৫৫ রান নিয়ে ক্রিজে আছেন মুমিনুল। তাকে সঙ্গ দেবেন নতুন ব্যাটসম্যান।

চলতি বছরের মাঝামাঝিতে ওয়েস্ট ইন্ডিজ দূর্গে টেস্ট সিরিজে লজ্জা বরণ করে বাংলাদেশ। হোমগ্রাউন্ডে সেই লজ্জা নিবারণের লক্ষ্য টাইগারদের। এ যাত্রায় টস ভাগ্যকে পাশে পান তারা। জেতেন স্বাগতিক অধিনায়ক সাকিব আল হাসান।চট্টগ্রাম জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে আগে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন তিনি।

ইমরুল কায়েসের সঙ্গে ইনিংসের গোড়াপত্তন করতে নামেন সৌম্য সরকার।তবে দীর্ঘ এক বছরপর টেস্টে তার প্রত্যাবর্তনটা হয় একদম বাজে। টেকেন মাত্র দুই বল। প্রথম ওভারেই কেমার রোচের বলে শান ডাওরিচের গ্লাভসবন্দি হয়ে ফেরেন তিনি।

এ টেস্ট দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক হয়েছে তরুণ অফস্পিনার নাঈম হাসানের। ইনজুরি কাটিয়ে দুই মাস পর মাঠে ফিরেছেন সাকিব। এক বছর পর একাদশে ফেরেন সৌম্য সরকার। এ ত্রয়ী অন্তর্ভুক্ত হওয়ায় বাদ পড়েন লিটন দাস, খালেদ আহমেদ ও আরিফুল হক।

চার স্পিনার ও এক পেসার নিয়ে একাদশ সাজিয়েছে বাংলাদেশ। একমাত্র পেসার হিসেবে খেলছেন মোস্তাফিজুর রহমান। ওয়েস্ট ইন্ডিজ একাদশ সাজিয়েছে দুইজন করে পেসার ও স্পিনার দিয়ে। স্পিন আক্রমণে লেগ স্পিনার দেবেন্দ্র বিশুর সঙ্গী বাঁহাতি স্পিনার জোমেল ওয়ারিক্যান। দলের দুই পেসার হলেন শ্যানন গ্যাব্রিয়েল ও কেমার রোচ।