তফসিল নিয়ে ঐক্যফ্রন্টের উল্টো দাবি যুক্তফ্রন্টের

বামে ড. কামাল হোসেন ও ডানে এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী। ফাইল ছবি।

নিজস্ব প্রতিবেদক, পিটিবিনিউজ.কম
নির্বাচন কমিশনের (ইসি) সঙ্গে বৈঠক করে আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল পেছানোর দাবি জানিয়েছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট। আর তফসিল না পেছানোর দাবি করেছে সাবেক রাষ্ট্রপতি এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী নেতৃত্বাধীন রাজনৈতিক জোট যুক্তফ্রন্ট। যুক্তফ্রন্টের একটি প্রতিনিধি দল আজ মঙ্গলবার (৬ নভেম্বর) নির্বাচন কমিশনের (ইসি) সঙ্গে দেখা করে জানিয়েছে, অকারণে তফসিল পেছানো ঠিক হবে না।

আজ যুক্তফ্রন্ট নেতা ও বিকল্পধারার মহাসচিব আবদুল মান্নানের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল দেখা করে ইসিকে চিঠি দেয়। ওই চিঠিতে নির্বাচন না পেছানোর কথা উল্লেখ করে বলা হয়, নির্বাচন তফসিল অকারণে বিলম্ব হলে জাতির মধ্যে সংশয়, বিভ্রান্তি ও হতাশার সৃষ্টি হবে—যা কোনো ক্রমেই কাম্য নয়।

এর আগে গতকাল সোমবার জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের একটি প্রতিনিধিদল তফসিল পেছানোর জন্য নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে দেখা করে। একপর্যায়ে সেখানে উভয় পক্ষের মধ্যে উত্তপ্ত বাক্যবিনিময়ের ঘটনাও ঘটেছিলো। ইসি আগামী ৮ নভেম্বর তফসিল ঘোষণার সম্ভাব্য তারিখ নির্ধারণ করেছিলো।

ইসির সঙ্গে দেখা শেষে আজ সন্ধ্যায় সংবাদ ব্রিফিংও করে যুক্তফ্রন্টের মহাসচিব আবদুল মান্নান। ব্রিফিংয়ে মান্নান বলেন, ইসির সঙ্গে আন্তরিক ও সৌহার্দ্যপূর্ণ আলোচনা হয়েছে। আমরা বলেছি নির্বাচনের তফসিল পেছালে সাংবিধানিক শূন্যতা তৈরি হতে পারে। আর এই শূন্যতা তৈরি হলে অগণতান্ত্রিক শক্তি ক্ষমতায় চলে আসতে পারে।

যুক্তফ্রন্ট তাদের চিঠিতে আরো বলে, সমস্ত জাতি অবাধ ও সুষ্ঠু নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছে। যদি তা করতে ব্যর্থ হয় তাহলে জাতি ইসিকে ক্ষমা করবে না। চিঠিতে আরো বলা হয়, সরকার বা অন্য কোনো জোট চাপ বা ভয়ভীতি প্রদর্শন করলে ইসি মাথা নত করবে না—এটা যুক্তফ্রন্ট ও সাধারণ মানুষের প্রত্যাশা।

বিকল্প ধারা বাংলাদেশের মহাসচিব মেজর (অব.) আব্দুল মান্নানের নেতৃত্বে ওই প্রতিনিধি দলে রয়েছেন বিকল্প ধারার প্রেসিডিয়াম সদস্য গোলাম সরোয়ার মিলন, বাংলাদেশ ন্যাপ চেয়ারম্যান জেবেল রহমান গানি, মাজহারুল হক শাহ চৌধুরী, ব্যারিস্টার ওমর ফারুক ও মাহমুদা চৌধুরী।

এদিকে আজ রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের সমাবেশে ঐক্যফ্রন্টের কয়েকটি কর্মসূচি ঘোষণা করেছেন এই জোটের মুখপাত্র ও বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। ফখরুল কর্মসূচি ঘোষণায় বলেন, যদি তফসিল না পেছায় তাহলে ইসি অভিমুখে পদযাত্রা করা হবে।

৮ নভেম্বর সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করবে নির্বাচন কমিশন।

রাজনৈতিক দলগুলো সরকার ও ইসির সঙ্গে ধারাবাহিক আলোচনায় বসছে। ৭ নভেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দ্বিতীয়বারের মতো জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে সংলাপে বসবেন। আর সিইসির সঙ্গে এদিন বৈঠক হওয়ার কথা রয়েছে জাতীয় পার্টির।

ইতোমধ্যে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, ৭ নভেম্বরের পর আর সংলাপ হবে না। আর প্রধানমন্ত্রী সংলাপ শেষে সংবাদ সম্মেলনে ফলাফল জানাবেন।

নির্বাচন ও তফসিল পেছানো বা না পেছানোর এ আলোচনার মধ্যে সিইসি কেএম নূরুল হুদা মঙ্গলবার সকালে সাংবাদিকদের বলেন, দলগুলোর মতামতের ভিত্তিতে নির্বাচন পেছাতে পারে। কিন্তু নির্বাচনের তফসিল পেছাবে না।