কুষ্টিয়া সাব-রেজিস্ট্রার হত্যা: পরিকল্পনাকারীসহ গ্রেপ্তার চার

শরীফুল ইসলাম, কুষ্টিয়া প্রতিনিধি, পিটিবিনিউজ.কম
কুষ্টিয়ায় সদর উপজেলা সাব-রেজিস্ট্রার নুর মোহাম্মদ শাহ হত্যাকান্ডের পরিকল্পনাকারীসহ চারজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তারা হলেন- নুর মোহাম্মদের পিয়ন ফারুক, রেজিস্ট্রি অফিসের নকল নবীশ সাইদুল, মিরপুর সাব-রেজিষ্ট্রার অফিসের পিয়ন কামাল ও বাবুল নামের অপর এক ব্যাক্তি। এছাড়া আরো কয়েকজন ব্যাক্তি এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত আছে বলে পুলিশ ধারণা করছেন। রেজেস্ট্রি অফিস থেকে সুযোগ সুবিধা না পাওয়ায় ক্ষোভ ছিলো তাদের মধ্যে। এছাড়া নুর মোহাম্মদ কুষ্টিয়া থাকলে তাদের সব আয়ও বন্ধ হয়ে যাবে, এসব ক্ষোভ থেকে তারা নুর মোহাম্মদকে খুন করতে ওই ফ্লাটে যায়। এরপর টাকা পয়সা না পেয়ে হাত-পাঁ বেঁধে তাকে হত্যা করে পালিয়ে যায় খুনিরা।

কুষ্টিয়ার পুলিশ সুপার এসএম তানভীর আরাফাত আজ রোববার (১৪ অক্টোবর) দুপুরে এক প্রেস ব্রিফিংয়ের নুর মোহাম্মদ হত্যাকান্ডের বিষয়ে এসব তথ্য জানান। এ সময় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জহিরুল ইসলাম, সহকারি পুলিশ সুপার নুরানী ফেরদৌস, গোয়েন্দা পুলিশের পরিদর্শক সাব্বিরুল ইসলামসহ অন্যরা। আসামিদের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করলেই আরো তথ্য বেরিয়ে আসবে বলেও জানান পুলিশ সুপার। এজন্য রিমান্ডের আবেদন জানানো হবে আদালতে।

পুলিশ সুপার জানান, সিসি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে হত্যার চারদিন পর ১৩ অক্টোবর রাতে শহরের হাউজিং থেকে জড়িত কামালাকে গ্রেপ্তার করা হয়। এরপর বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চালিয়ে ফারুক, সাইদুল ও বাবুলকে গ্রেপ্তার করা হয়। তারা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে হত্যার সাথে জড়িত থাকার বিষয়টি স্বীকার করেছে। আরো তথ্য জানার জন্য তাদের রিমান্ডের আবেদন জানানো হবে। এ হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত রশি, গামছাসহ অন্যান্য আলামত উদ্ধার করা হয়েছে।

উল্লেখ, গত ৮ অক্টোবর শহরের ভাড়া বাসায় খুন হন সদর উপজেলা সাব-রেজিষ্ট্রার নুর মোহাম্মদ। এ ঘটনায় তার ছোট ভাই কামরুজ্জামান বাদী হয়ে পরদিন কুষ্টিয়া মডেল থানায় মামলা করেন। নিহত নুর মোহাম্মদের বাড়ি কুড়িগ্রাম জেলার রাজারহাট থানার মৌলা গ্রামে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*


This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.