ক্রিকেটকে ‘বাজে খেলা’ বললেন বেটস

ফাইল ছবি

স্পোর্টস ডেস্ক, পিটিবিনিউজ.কম
সাবেক ইংলিশ ওপেনার মার্কাস ট্রেসকোথিকের সৌজন্যে ক্রিকেট বিশ্ব বেশ আগেই জেনেছে মানসিক অবসাদ ক্রিকেটারদের একটি রোগ। ক্রিকেট খেলাটা মনের ওপর কতোটা চাপ সৃষ্টি করে তা সবাই জানলেও কেউ বিষয়টি প্রকাশ্যে আনেননি। সুজি বেটস ঠিক সেই কাজটাই করলেন।

বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবসে নিউজিল্যান্ডের এই ক্রিকেটার সোজাসাপ্টা বলেছেন, মানসিক স্বাস্থ্য বিচারে ক্রিকেট সবচেয়ে বাজে খেলাগুলোর একটি।

বুধবার ছিলো বিশ্ব মানসিক স্বাস্থ্য দিবস। দিনটি উপজীব্য করে নিউজিল্যান্ডের নারী ক্রিকেট দলের সাবেক এই অধিনায়কের সাক্ষাৎকার নিয়েছে দেশটির একটি সংবাদমাধ্যম। সেই সাক্ষাৎকারে বেটসের মন্তব্য, এটা সম্ভবত সবচেয়ে বাজে খেলা- সেটি মানসিক স্বাস্থ্য বিচারে।

আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বেটসের ক্যারিয়ার প্রায় এক যুগের। বোঝাই যাচ্ছে, কতোটা ধকল পোহালে এমন কথা বলা যায়। পরিবার-পরিজন ছেড়ে দীর্ঘদিনের সফর, সর্বোচ্চ পর্যায়ে ধারাবাহিক পারফরম্যান্সের চাপ, মাঠের মধ্যে প্রতিপক্ষকে চাপে রাখতে নানা কৌশল আর সমীকরণ- এসব ব্যাপারই মূলত ভীষণ চাপ সৃষ্টি করে থাকে ক্রিকেটারের মনে।

মেয়েদের টি-টোয়েন্টি র‍্যাঙ্কিংয়ে শীর্ষস্থানীয় এই ব্যাটসম্যান মনে করেন, ‘সর্বোচ্চ পর্যায়ের ক্রিকেটে শারীরিক দক্ষতার চেয়ে মানসিক দক্ষতার বেশি প্রয়োজন। সর্বোচ্চ পর্যায়ের ক্রিকেটে আসার পর শারীরিক দক্ষতার চেয়ে মানসিক দক্ষতাটা বেশি কাজে লাগে। অনেক কিছুর সঙ্গে লড়তে হয়, বিশেষ করে দল যখন খারাপ করছে। মেয়েদের ক্রিকেটে প্রতিদ্বন্দ্বিতা বাড়ার সঙ্গে মানসিক দক্ষতার প্রয়োজনও বেড়েছে বলে মনে করেন তিনি।’

বেটস সাম্প্রতিক চাপটাই তুলে ধরলেন, ‘মেয়েদের ক্রিকেটে আগে খেলোয়াড়দের মানসিক স্বাস্থ্য নিয়ে কেউ ভাবতো না। খেলার জন্য তিন-চার সপ্তাহ বাইরে থাকলেও ঘরে ফিরে পরিবারকে সময় দেয়া যেতো। কিন্তু এখন সফর শেষে আপনাকে ঘরে ফিরতে হচ্ছে আবারও অনুশীলনে নামার জন্য।’

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*


This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.