শুভ জন্মদিন ক্যাপ্টেন মাশরাফি

ফাইল ছবি

স্পোর্টস ডেস্ক, পিটিবিনিউজ.কম
আজ ৫ অক্টোবর, নড়াইল এক্সপ্রেস-খ্যাত বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজার জন্মদিন।  ১৯৮৩ সালের ৫ অক্টোবর সবুজ শ্যামল নড়াইল শহরের মহিষখোলায় জন্মগ্রহণ করেন মাশরাফি। অধিনায়ক এবার ৩৬ বছরে পা দিয়েছেন। কতালীয়ভাবে তার ছেলে সাহেলেরও জন্ম আজকের দিনেই।

মাশরাফি বাংলাদেশের ক্রিকেট দলের শুধু অধিনায়কই নয়, মাশরাফি নামটি যেন পরশ পাথর! যার ছোঁয়ায় নতুন করে প্রাণ ফিরে পেয়েছে বাংলাদেশ দলে। ম্যাচের পর ম্যাচ, সিরিজের পর সিরিজ লাল-সবুজের দেশকে জিতিয়ে চলেছেন তিনি। আজকের এই দিনে তাকে জানাই শুভ জন্মদিন ক্যাপ্টেন ম্যাশ।

দেশবাসী ও বিশ্ববাসীর কাছে আজ যিনি ক্যাপ্টেন মাশরাফি নামে পরিচিত নড়াইলের সেই দুরন্ত কিশোরটি ছোটবেলা থেকে কৌশিক নামেই এলাকার সবার কাছে পরিচিত ছিলেন। ছোটবেলা থেকেই ক্রিকেটের প্রতি অদ্ভুত এক ভালোবাসা কাজ করতো তার। এমনও অনেক দিন গেছে যে নাওয়া-খাওয়া ভুলে সারাদিন খেলার মাঠেই পড়ে ছিলেন দুরন্ত সেই কিশোর। এজন্য অবশ্য বাবা মায়ের কাছ থেকে শাস্তিও কম পেতে হয়নি তাকে। তবে বাবা মায়ের শাসনের পাশাপাশি প্রিয় মামার সাহায্যই পেয়েছিলেন সব সময়। তাই তো ক্রিকেটটাকে এক মুহূর্তের জন্যও দূরে ঠেলে দিতে হয়নি তাকে।

সময়ের সঙ্গে মাশরাফি বিন মর্তুজা নামে ক্রিকেটবিশ্বে যার সরব উপস্থিতি। বাংলাদেশের ওয়ানডে ক্যাপ্টেন। সম্ভবত বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় খেলোয়াড় শুধু নয়, মানুষও। ২০১৪ সালে এই দিনে পৃথিবীতে এসেছে মাশরাফির দ্বিতীয় সন্তান, পুত্র সাহেল মর্তুজা। ক্যাপ্টেন ও তার ছেলের জন্য জন্মদিনের শুভেচ্ছা।

বাংলাদেশের ক্রিকেটকে অনন্য এক উচ্চতায় পৌঁছে দেয়ার পেছনের কারিগর যেন এই মাশরাফি। তাই তো পেয়েছেন কোটি কোটি মানুষের ভালোবাসাও। শত বছর বেঁচে থাকুক মাশরাফি। হাজারো তরুণ ক্রিকেটারের অনুপ্রেরণা হয়ে। হাজারো ক্রিকেট ভক্তের ভালোবাসা নিয়ে।

তবে মাশরাফি বিন মুর্তজা জন্মদিনের মতো উপলক্ষ্য উদযাপনে অনাগ্রহী। কারণটাও অবশ্য খোলাসা করেছেন। প্রথম জন্মদিনের সময় ছিলেন নানাবাড়িতে। ওই সময় ধুমধাম করে দিনটি উদযাপন করেছিলেন তার মা, অনুষ্ঠান শেষ হওয়ার পর নানা মাকে ডেকে বললেন, ‘ধরো তোমার ছেলে যদি ৭০ বছর বাঁচে, তাহলে ওর বয়স কমছে না বাড়ছে? মা মাথা নিচু করে বললেন ‘কমছে’। নানা তখন বললেন, ‘তাহলে এভাবে উৎসব না করে গরিব-দুঃখীদের খাওয়াতে পার, নফল নামাজ পড়তে পার।’

এরপর পরিবার থেকে আর কখনো মাশরাফির জন্মদিন পালন করা হয়নি। বড় হয়ে মাশরাফিও আর মায়ের ভাবনার বিপরীতে যাননি। তবে মাশরাফি তার জন্মদিনের আনুষ্ঠানিকতা এড়িয়ে গেলেও অন্যরা তো চুপ করে থাকেন না। এই দিনে তাই জন্মদিনের রাশি রাশি শুভেচ্ছায় কেটে যায় মাশরাফির দিন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও তাকে শুভেচ্ছায় সিক্ত করেন ভক্ত ও সতীর্থরা।

টাইগার দলপতির জন্মদিনে তাকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন জাতীয় দলের সতীর্থরা। নিজের ভেরিফাইড ফেসবুকে মুশফিকুর রহিম লিখেছেন, ‘তিনি (মাশরাফি) অনুপ্রেরণার আরেক নাম, শুভ জন্মদিন ম্যাশ।’

মাশরাফির সঙ্গে ছবি পোস্ট করে রুবেল লিখেছেন, ‌‘শুভ জন্মদিন মিস্টার ক্যাপ্টেন, অনেক অনেক দোয়া আপনার ও আপনার পরিবারের জন্য।’

মাশরাফির জন্মদিনে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন তাসকিন আহমেদও। তিনি লিখেছেন, ‘শুভ জন্মদিন ক্যাপ্টেন।’

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*


This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.