খালাফ হত্যা: মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামির রিভিউ আবেদনের রায় রোববার

ফাইল ছবি

নিজস্ব প্রতিবেদক, পিটিবিনিউজ.কম
সৌদি দূতাবাস কর্মকর্তা খালাফ আল আলী হত্যা মামলায় সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের রায় পুনর্বিবেচনা চেয়ে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি সাইফুল ইসলামের করা আবেদনের ওপর শুনানি শেষ হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার শুনানি শেষে আগামী রোববার রায় ঘোষণার জন্য দিন ধার্য করেছেন আদালত।

প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন চার সদস্যের আপিল বিভাগে পুনর্বিবেচনার (রিভিউ) আবেদনের ওপর শুনানি নিয়ে এ দিন ধার্য করেন।

এর আগে গত বছরের ১ নভেম্বর ঢাকায় সৌদি দূতাবাসের কর্মকর্তা খালাফ আল আলী হত্যা মামলায় এক আসামির মৃত্যুদণ্ড, তিন আসামির যাবজ্জীবন ও এক আসামির খালাসের হাইকোর্টের রায় বহাল রাখেন আপিল বিভাগ। খালাফ হত্যা মামলায় হাইকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষের তিনটি ও আসামিপক্ষের করা একটি আপিল খারিজ করে ওই আদেশ দেন দেশের সর্বোচ্চ আদালত।

২০১২ সালের ৫ মার্চ গুলশানে গুলিবিদ্ধ হন খালাফ আল আলী। পরদিন ভোরে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাঁর মৃত্যু হয়। খালাফ হত্যার ঘটনায় ৭ মার্চ গুলশান থানায় মামলা করে পুলিশ। একই বছরের ৩০ ডিসেম্বর ঢাকার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল-৪ মামলার রায়ে পাঁচজনকে মৃত্যুদণ্ডাদেশ দেন।

নিম্ন আদালতের রায়ের পর আসামিদের মৃত্যুদণ্ডাদেশ অনুমোদনের (ডেথ রেফারেন্স) জন্য হাইকোর্টে আসে। নিম্ন আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে আসামিরা আপিল করেন। এর ওপর শুনানি শেষে ২০১৩ সালের ১৮ নভেম্বর হাইকোর্ট রায় দেন। রায়ে এক আসামির মৃত্যুদণ্ড বহাল রাখা হয়। তিন আসামির মৃত্যুদণ্ডের পরিবর্তে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডাদেশ দেয়া হয়। এক আসামিকে খালাস দেয়া হয়।

হাইকোর্ট রায়ে আসামি সাইফুল ইসলামের মৃত্যুদণ্ড বহাল থাকে। মো. আল আমিন, আকবর আলী ওরফে রবি, রফিকুল ইসলাম খোকনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেয়া হয়। খালাস পান অপর আসামি সেলিম চৌধুরী ওরফে সেলিম আহম্মেদ।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত সাইফুল এ রায় পুনর্বিবেচনা চেয়ে আবেদন করেন চলতি বছর। যার ওপর আজ শুনানির জন্য ওঠে। আদালতে সাইফুলের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী কাজী আখতার হামিদ। রাষ্ট্রপক্ষে শুনানিতে অংশ নেন অ্যাটর্নি জেনারেলে মাহবুবে আলম।

শুনানির পর আখতার হামিদ বলেন, সাইফুলের করা পুনর্বিবেচনা আবেদনের ওপর শুনানি শেষ হয়েছে। আদালত রোববার আদেশের জন্য দিন ধার্য করেছেন।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*


This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.