৪ নভেম্বর দ্বিতীয় জাতীয় নৌ কনভেনশন ২০১৮

নিজস্ব প্রতিবেদক, পিটিবিনিউজবিডি.কম
নৌ পরিবহন ব্যবস্থার উন্নয়নসহ নদ-নদী, হাওর-বাওড়, খাল-বিল রক্ষা এবং প্রাকৃতিক পানিসম্পদের সুষ্ঠু ব্যবহারের লক্ষ্যে নৌ, সড়ক ও রেলপথ রক্ষা জাতীয় কমিটির (এনসিপিএসআরআর) উদ্যোগে আগামি ৪ নভেম্বর ঢাকায় অনুষ্ঠিত হবে দ্বিতীয় জাতীয় নৌ কনভেনশন ২০১৮। পুরানা পল্টনের কমরেড মণি সিংহ সড়কের মুক্তি ভবনের মৈত্রী মিলনায়তনে এই কনভেশন অনুষ্ঠিত হবে। এবারের কনভেনশনের প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করা হয়েছে- ‘নদী রক্ষা ও উন্নত নৌ পরিবহন, দ্রুত বয়ে আনবে জাতীয় উন্নয়ন’। আজ সোমবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। সংগঠনের সভাপতি হাজী মোহাম্মদ শহীদ মিয়া ও সাধারণ সম্পাদক আশীষ কুমার দে কনভেনশ সফল করতে সংশ্লিষ্ট সকল মহলের সহযোগীতা চেয়েছেন বলে বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়।

উল্লেখ্য, গত বছরের ২৯ অক্টোবর নৌ, সড়ক ও রেলপথ রক্ষা জাতীয় কমিটির উদ্যোগে ‘প্রথম জাতীয় নৌ কনভেশন ২০১৭’ অনুষ্ঠিত হয়। এবার দ্বিতীয়বারের মতো একই উদ্যোগ নিয়েছে বেসরকারি এই সংগঠনটি। তবে বাংলাদেশ নদীমাতৃক দেশ হলেও রাষ্ট্রীয়ভাবে কিংবা অন্য কোনো বেসরকারি সংগঠনের উদ্যোগে এর আগে কখনও এ ধরনের কনভেনশনের আয়োজন করা হয়নি।

জাতীয় কমিটির বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, এবারের কনভেনশনে অভ্যন্তরীণ ও সমুদ্রগামী নৌ পরিবহন ব্যবস্থার সামগ্রিক চিত্র তুলে ধরে উপকূলীয় ও হাওরাঞ্চলে নৌ যোগাযোগ আধুনিকায়নের ওপর গুরুত্বারোপ করা হবে। পরিকল্পিতভাবে খননের মাধ্যমে বিলুপ্ত নদ-নদী ও নৌপথ উদ্ধার, অভ্যন্তরীণ নৌ চলাচল ব্যবস্থা সম্প্রসারণের লক্ষ্যে নৌপথের আয়তন বৃদ্ধি, সচল নৌপথগুলোতে সারা বছর নৌযান চলাচলের উপযোগী নাব্য সংরক্ষণ করা, উপকূল ও হাওর এলাকায় পরিবেশবিনাশী প্রকল্প গ্রহণ না করা, নদী-খাল-বিলসহ উন্মুক্ত জলাভূমি ক্ষতিগ্রস্থ হয়- এমন সড়ক, সেতু, কালভার্ট, বাঁধ ও স্লুইসগেট নির্মাণ থেকে বিরত থাকা এবং সব ধরনের প্রাকৃতিক পানিসম্পদের সুষ্ঠু ব্যবহার নিশ্চিতের তাগিদ দেয়া হবে কনভেনশন থেকে।

জাতীয় নদী রক্ষা কমিশন ও নদীবিষয়ক জাতীয় টাস্কফোর্সকে শক্তিশালী ও গতিশীল করা, নিয়মিত নদী খনন ও নৌপথের পলি অপসারণে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ) ও পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) মতো রাষ্ট্রীয় সংস্থাগুলোর সক্ষমতা বৃদ্ধি ও জবাবদিহিতা নিশ্চতকরণের মতো গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলোও প্রাধান্য পাবে। এছাড়া এবারের কনভেনশনে নদীভাঙন রোধে দীর্ঘমেয়াদী সুপরিকল্পিত পদক্ষেপ গ্রহণসহ অভ্যন্তরীণ নৌ পরিবহন ব্যবস্থাকে আধুনিক ও যুগোপযোগী করে তোলার ওপর গুরুত্ব দেয়া হবে বলে জাতীয় কমিটির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*


This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.