লিটনের সেঞ্চুরিতেও বাংলাদেশের ২২২ রানের মামুলি সংগ্রহ

স্পোর্টস ডেস্ক, পিটিবিনিউজ.কম
এশিয়া কাপের ফাইনালে মেহেদি মিরাজ ও লিটনকে কুমার দাসের ওপেনিং জুটিতে গড়েন ১২০ রান করার পরে ভারতের বিপক্ষে ২২২ রানের মামুলি সংগ্রহ গড়েছে বাংলাদেশ। যেখানে লিটন একাই করেছেন ১২১ রান।

ইমরুল, মুশফিক, মিথুন, রিয়াদ এই চার সিরিয়রের ব্যাটে থেকে এলো মাত্র ১৩ রান! সর্বনাশ হয়ে যায় এখানেই। লিটনের দুর্দান্ত সেঞ্চুরি বড় ইনিংসের দারুণ সম্ভাবনা জাগালেও, মিডল অর্ডারের শোচনীয় ব্যর্থতায় ৪৮.৩ ওভারে মাত্র ২২২ রানে বাংলাদেশের ইনিংস।

দুবাই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে এশিয়া কাপের ফাইনালে টস হেরে প্রথমে ব্যাটে নামে মাশরাফির বাহিনী। ওপেনে লিটন দাস এবং মেহেদি মিরাজ ২০১৬ সালের পর সবচেয়ে বড় ওপেনিং জুটি গড়েন। এছাড়া ভারতের বিপক্ষে ওপেনিং জুটিতে রেকর্ড জুটি গড়ে তারা। ওই জুটি ভাঙার পর ৩১ রান যোগ করে ৫ উইকেট হারায় বাংলাদেশ। দলীয় ১৫১ রানের মধ্যে একে একে ফিরে যান ইমরুল কায়েস, মুশফিকুর রহিম এবং মাহমুদুল্লাহরা। ভারতের বোলাররা তাদের আউট করেনি বাংলাদেশ ব্যাটসম্যানরা উইকেট উপহার দিয়ে ফেরে তাদের।

তবে ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরি করা লিটস দাসে আশা দেখছিলো বাংলাদেশ। কিন্তু কুলদীপ যাদবের বলে বিতর্কিত স্ট্যাম্পিং হন তিনি। টিভি রিপ্লেতে মনে হয়েছে তার পা দাগের ভেতরেই আছে কিন্তু থার্ড আম্পিয়ারের সিদ্ধান্ত আসে তিনি আউট। তিনি ১৮৮ রানের মাথায় ষষ্ট উইকেট হিসেবে বিদায় নেন। বাংলাদেশ কেবল ৪০ ওভার পার করেছে। সামনে ছিল আরও প্রায় ১০ ওভার।

কিন্তু সৌম্য-মাশরাফিরা শেষ পর্যন্ত খেলতে পারেননি। শেষের দিকে অবশ্য সৌম্য ৩৩ রান করলে দলের রান কিছুটা বাড়ে। বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের উইকেট বিলিয়ে আসার পাশাপাশি এ ম্যাচে বাংলাদেশের বড় ঘাতক রান আউট। ভুল বোঝাবুঝির শিকার হয়ে শূন্য রানে কোন বল না খেলে ফেরন মিঠুন। সৌম্য সরকার এবং নাজমুল অপু রান আউট হন। এছাড়া মাশরাফি ফেরেন স্ট্যাম্পিং হয়ে। শেষ পর্যন্ত বাংলাদেশ ৯ বল বাকি থাকতে ২২২ রানে অলআউট হয়ে যায়।

সংক্ষিপ্ত স্কোর
বাংলাদেশ ইনিংস: ২২২ (৪৮.৩ ওভার)

(লিটন দাস ১২১, মেহেদী হাসান মিরাজ ৩২, ইমরুল কায়েস ২, মুশফিকুর রহিম ৫, মোহাম্মদ মিথুন ২, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ৪, সৌম্য সরকার ৩৩, মাশরাফি বিন মুর্তজা ৭, নাজমুল ইসলাম অপু ৭, মোস্তাফিজুর রহমান ২, রুবেল হোসেন ০*; ভুবনেশ্বর কুমার ০/৩৩, জ্যাসপ্রীত বুমরাহ ১/৩৯, যুজবেন্দ্র চাহাল ১/৩১, কুলদীপ যাদব ৩/৪৫, রবীন্দ্র জাদেজা ০/৩১, কেদার যাদব ২/৪১)।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*


This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.