পদ্মাসেতুতে বসানো হলো রেলওয়ে বক্স স্ল্যাব

ছবি : সংগৃহীত।

মুন্সীগঞ্জ সংবাদদাতা, পিটিবিনিউজ.কম
দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলেছে পদ্মাসেতু প্রকল্পের কাজ। এই প্রকল্পের জাজিরা প্রান্তে ৪১ ও ৪২ নম্বর খুঁটিতে থাকা ‘৭এফ’ নম্বর স্প্যানের (সুপার স্ট্রাকচার) ওপর বসানো হলো রেলওয়ে বক্স স্ল্যাব। আজ মঙ্গলবার (২৫ সেপ্টেম্বর) সকাল থেকে কর্মযজ্ঞ শুরুর পর প্রথমবারের মতো স্প্যানের ওপর রেলওয়ে বক্স স্ল্যাব বসানোর কাজ সম্পন্ন হতে বিকাল গড়িয়ে যায়। প্রতিটি স্প্যানে চারটি সেকশনে আটটি করে মোট ৩২টি বক্স স্ল্যাব বসানো হবে। আজ প্রথম স্ল্যাবটি বসানো হলো। পর্যায়ক্রমে আরো ৩১টি বক্স স্ল্যাব বসানোর কাজ চলমান থাকবে। পদ্মা সেতু প্রকল্পের দায়িত্বশীল এক নির্বাহী প্রকৌশলী এ তথ্য জানান।

তিনি জানান, প্রতিটি বক্স স্ল্যাবের ওজন আট টন এবং তার দৈর্ঘ্য দুই মিটার ও ৫. ১৫ মিটার প্রস্থের। পদ্মা সেতুর ৪২টি খুঁটিতে থাকা ৪১টি স্প্যানের ওপর মোট এক হাজার ৩১২টি রেলওয়ে স্ল্যাব বসানো হবে। ‘৭এফ’ নম্বর স্প্যানের ওপর রেলওয়ে স্ল্যাব বসানোর লক্ষ্যে সোমবার মুন্সীগঞ্জের লৌহজংয়ের কুমারভোগ কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ড থেকে ভাসমান ক্রেনে করে আটটি রেলওয়ে স্ল্যাব জাজিরা প্রান্তে নিয়ে যাওয়া হয়। মঙ্গলবার সকাল থেকে দেশি-বিদেশি প্রকৌশলী ও শ্রমিকরা প্রথম রেলওয়ে স্ল্যাব বসানোর কাজ শুরু করেন।

নির্বাহী প্রকৌশলী জানান, এই প্রথম স্প্যানের ওপর রেলওয়ে স্ল্যাব বসানোর কাজ শুরু করা হলো। জাজিরা প্রান্তের ৪১ ও ৪২ নম্বর খুঁটিতে থাকা স্প্যানের ওপর দুই মিটার দৈর্ঘের ও ৫. ১৫ মিটার প্রস্থের এবং আট টন ওজনের প্রথম স্ল্যাবটি বসানো হয়। এখন স্ল্যাবের মাঝে কংক্রিটি ঢালাই কাজের পক্রিয়া চলছে।

প্রকৌশলীরা জানান, ১৫০ মিটার দৈর্ঘের প্রতিটি স্প্যানের ওপর চারটি সেকশনে আটটি করে মোট ৩২টি স্ল্যাব বসানো হবে। মঙ্গলবার প্রথম স্ল্যাব বসানো হয়েছে, বাকী ৩১টি স্ল্যাব পর্যায়ক্রমে বসানোর পক্রিয়া চলমান রাখা হয়েছে। একটি স্প্যানের ওপর ৩২টি স্ল্যাব বসানোর হিসেব অনুযায়ী ৪১টি স্প্যানের ওপর বসানো হবে এক হাজার ৩১২টি রেলওয়ে স্ল্যাব। তারা আরো জানান, স্প্যানের ওপর রেলওয়ে স্ল্যাব বসানোর কাজ শুরুর আগে লোডটেস্টাসহ অন্যান্য পরীক্ষা-নিরীক্ষার কাজ শেষ করা হয়। কুমারভোগ কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ডে সাত শতাধিকের বেশি রেলওয়ে স্ল্যাব প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

উল্লেখ্য, সেতুর ২৯, ৩০, ৩১, ৩২ নম্বর পিলারের নকশা চূড়ান্ত অনুমোদন হয়েছে। বাকি সাতটি পিলারের নকশা এখনো চূড়ান্ত হয়নি। সেতুর ৩৭, ৩৮, ৩৯, ৪০, ৪১ ও ৪২ নম্বর পিলারের ওপর পাঁচটি স্প্যান বসানোর মাধ্যমে জাজিরা প্রান্তে সেতুর পৌনে এক কিলোমিটার কাঠামো দৃশ্যমান হয়েছে। ২০১৫ সালের ডিসেম্বরে সেতুর কাজ শুরু হয়। ২০১৭ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর বসানো হয় প্রথম স্প্যানটি। এর প্রায় চার মাস পর চলতি বছরের ২৮ জানুয়ারি দ্বিতীয় স্প্যানটি বসে। এর মাত্র দেড় মাস পর ১১ মার্চ শরীয়তপুরের জাজিরা প্রান্তে ধূসর রঙের তৃতীয় স্প্যান বসানো হয়। এর দুই মাস পর ১৩ মে বসে চতুর্থ স্প্যান। আর পঞ্চম স্প্যানটি বসে এর এক মাস ১৬ দিনের মাথায়। ৬.১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ এ সেতুতে ৪২টি পিলারের ওপর বসবে ৪১টি স্প্যান। পদ্মা বহুমুখি সেতুর মূল আকৃতি হবে দোতলা। কংক্রিট ও স্টিল দিয়ে নির্মিত হচ্ছে এ সেতুর কাঠামো।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*


This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.