মাশরাফিকে নিয়ে প্রশ্ন আগারকারের, জবাব নাফীসের

ফাইল ছবি

স্পোর্টস ডেস্ক, পিটিবিনিউজ.কম
আফগানিস্তানের বিপক্ষে মাশরাফির পারফরম্যান্স নিয়ে প্রশ্ন তুললেন সাবেক ভারতীয় পেসার অজিত আগারকার। আর মাশরাফির হয়ে চমৎকার জবাব দিয়েছেন বাংলাদেশের এক সময়কার নিয়মিত ওপেনার শাহরিয়ার নাফীস।

আবুধাবির গতকালকের সন্ধ্যেটা বাংলাদেশের ছিলো না। ছিলো না অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজারও। রশিদ খান আর গুলবুদ্দিন নাইব স্লোগ ওভারে তাঁকে বেধড়ক মেরেছেন। এদিন অধিনায়ক ৮ ওভার বল করে ৬৭ রান দিয়ে ছিলেন উইকেটশূন্য। চার বাউন্ডারিসহ নিজের অষ্টম ওভারে দিয়েছেন ১৯, যার ১৮ রানই নিয়েছেন রশিদ।

মাশরাফির এই বোলিং দেখেই দলে তাঁর থাকা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন সাবেক ভারতীয় পেসার অজিত আগারকার। ইএসপিএন ক্রিকইনফোর আয়োজন ‘ম্যাচ ডে’তে এমন প্রশ্ন তোলেন তিনি। এই অনুষ্ঠানে ঢাকা থেকে ভিডিও কনফারেন্সে থাকেন শাহরিয়ার নাফীস। নাফীস অবশ্য আগারকারের এমন মন্তব্যের বিপরীতে পাশেই দাঁড়িয়েছেন তাঁর এক সময়ের সতীর্থের।

আফগানিস্তানের ইনিংসের ঠিক পরপরই তিনি এই অনুষ্ঠানে বলেন, ‘আমি জানি না মাশরাফিকে নিয়ে শাহরিয়ার কী ভাবছে। রশিদ খান আর নাইব আজ তাঁকে বেধড়ক পিটিয়েছে। এমন পারফরম্যান্স কী দলে থাকার জন্য যথেষ্ট? নাকি মাশরাফি দলে থাকে যেহেতু সে একজন ভালো মেনটর হিসেবে আর যেহেতু সে পুরো দলকে ঐক্যবদ্ধ রাখতে পারে, সে জন্য। আমি বিশ্বাস করি দলের নেতা হতে হলে অবশ্য পারফরম করেই হতে হবে। মাশরাফির এমন পারফরম্যান্স কিন্তু আমার সেই বিশ্বাসকে সমর্থন করে না।’

নাফীস আগারকারের এই মন্তব্যের বিপরীতে মাশরাফির সমর্থনে বলেন, ‘খেলা শুরু হওয়ার পর মাশরাফিকে ফুল হাতা জার্সি পরা দেখেই বুঝেছিলাম, সে আজ ওপেনিংয়ে বল করবে না। সে সাধারণত নতুন বলে বল করে এবং ৪০ ওভারের মধ্যেই নিজের কোটা শেষ করে। বাংলাদেশ আজকের ম্যাচে ভিন্ন কিছু চেষ্টা করেছে। রুবেল, রনিদের দিয়ে শুরুতে বোলিং করিয়েছে। মাশরাফি পরে বল করেছে। অজিতের সঙ্গে আমি একটি বিষয়ে দ্বিমত পোষণ করছি। গত কয়েক বছর ধরে বল হাতে বাংলাদেশের সেরা পারফরমারের নাম মাশরাফি। এমন না যে সে দলের মেনটর হিসেবেই দলে আছে। নিজের পারফরম্যান্স দিয়েই সে দলে আছে।’

আগারকার এই মন্তব্যের সময় নিজের সামনে কোনো পরিসংখ্যান নিয়ে বসেননি হয়তো। পরিসংখ্যান থাকলে মাশরাফিকে নিয়ে এমন অভিমত দিতে পারতেন না তিনি।

পরিসংখ্যান বলছে, অধিনায়ক হওয়ার পর ৫৯ ম্যাচে বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দিয়ে বল হাতে ৭৯ উইকেট তুলে নিয়েছেন তিনি। এই ৫৯ ম্যাচে বাংলাদেশ জিতেছে ৩৩টিতে! সবশেষ ১০ ম্যাচে তাঁর উইকেটের সংখ্যা ১৫। আরো নির্দিষ্ট করে বললে পাঁচ ম্যাচ পর কালই প্রথম উইকেটশূন্য বাংলাদেশের ওয়ানডে অধিনায়ক।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*


This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.