ঘূর্ণিঝড় মাংখুটের তাণ্ডবে ফিলিপিন্স ও চীনে নিহত ৬৬

ছবি: বিবিসি।

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, পিটিবিনিউজ.কম
শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় (টাইফুন) মাংখুট আঘাত হেনেছে ফিলিপিন্স, চীন ও হংকংয়ে। এই ঘূর্ণিঝড় এ পর্যন্ত ৬৬ জনের মৃত্যুর খবর দিয়েছে আন্তর্জাতিক বিভিন্ন গণমাধ্যম। এর মধ্যে ফিলিপিন্সে ৬৪ জন ও চীনে দুইজন। বার্তা সংস্থা আলজাজিরা ও রয়টার্স’র এক প্রতিবেদনে এ কথা বলা হয়েছে।

মাংখুট বর্তমানে চীনের দক্ষিণাঞ্চলীয় এলাকায় অবস্থান করছে বলে জানিয়েছে চীনের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন সিজিটিএন। সেখানে ১০০ কিলোমিটার গতিবেগে ঘূর্ণিঝড় বইছে।

চীনের আবহাওয়া দপ্তর জানিয়েছে, সোমবার দেশটির দক্ষিণাঞ্চলীয় প্রদেশ গুয়াংদংয়ে ঘূর্ণিঝড়ের পাশাপাশি ভারী বর্ষণে অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। সব ধরনের যান চলাচল বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। লাখ লাখ মানুষকে তাদের ঘরবাড়ি ছেড়ে নিরাপদে সরে যেতে হয়েছে।

ভোর ৬টায় গুয়াংজিপ্রদেশের হেংজিয়ান এলাকায় অবস্থান করছে এটি। দিনের মধ্যে এটি গুইজোউ, চংকিং ও ইউনানপ্রদেশে ছড়িয়ে পড়তে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া দপ্তর।

ফিলিপিন্সে আঘাত হেনে তাণ্ডব চালিয়ে ৬৪ জনের প্রাণহানি ঘটিয়ে চীনের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলে আঘাত হানে। এতে ভূমিধসের ঘটনাও ঘটেছে বলে জানিয়েছে দেশটির আবহাওয়া দপ্তর।

ফিলিপিন্সের আবহাওয়াবিদরা বলছেন, মাংখুট এ বছরের সবচেয়ে শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড়। প্রায় ৪০ লাখের বেশি মানুষ সুপার টাইফুন মাংখুটের কবলে পড়েছে।

ফিলিপিন্সে আড়াই লাখ টন ধান নষ্ট
এদিকে শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় মাংখুটের তাণ্ডবে আড়াই লাখ টন ধান ও ১২০০ টন ভুট্টা নষ্ট হয়েছে বলে জানিয়েছে ফিলিপিন্স। সোমবার দেশটির কৃষি বিভাগ প্রাথমিক হিসাবের ভিত্তিতে এসব তথ্য জানিয়েছে বলে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

দেশটির উত্তরাঞ্চলীয় প্রদেশগুলোতে তাণ্ডব চালানো শক্তিশালী টাইফুনটির কারণে জমিতে থাকা মোট দুই লাখ ৫০ হাজার ৭৩০ টন ধান নষ্ট হয়ে গেছে। পাশাপাশি এক হাজার ২০৪ টন ভুট্টাও নষ্ট হয়েছে বলে জানিয়েছে কৃষি বিভাগ।

মাংখুটে মোট প্রায় নয় কোটি ২০ লাখ ডলার মূল্যের ফসল নষ্ট হয়েছে বলে জানিয়েছে তারা।

বিশ্বের অন্যতম প্রধান চাল আমদানিকারক দেশ ফিলিপিন্স। মাংখুট আঘাত হানার আগে থেকেই দেশটিতে চালের ঘাটতি ছিল। চালের খুচরা মূল্য বাড়ায় মুদ্রাস্ফীতি প্রায় এক দশকের মধ্যে সর্বোচ্চ পর্যায়ে উঠে গেছে।

মাংখুটে দুর্যোগপ্রবণ ফিলিপিন্সে আঘাত হানা এ বছরের ১৫তম ঘূর্ণিঝড়। দেশটিতে সাধারণত বছরে ছোট-বড় মিলিয়ে ২০টি ঘূর্ণিঝড় হয়ে থাকে।এই ঘূর্ণিঝড় ২০১৩ সালে আঘাত হানা ফিলিপিন্সের ইতিহাসে সবচেয়ে প্রলয়ঙ্করী ঘূর্ণিঝড় সুপার ঘূর্ণিঝড় হাইয়ানের স্মৃতি মনে করিয়ে দিয়েছে। হাইয়ানের আঘাতে সাত হাজারেরও বেশি লোক নিহত হয়েছিলো। তবে ওই ঘূর্ণিঝড় আঘাত হানার পর থেকে ফিলিপিন্সের ঘূর্ণিঝড় প্রস্তুতি ও লোকজনকে সরিয়ে নেওয়ার প্রক্রিয়া উন্নত হওয়ায় মাংখুটে হতাহতের সংখ্যা কম হয়েছে বলে দাবি করেছেন দেশটির কর্মকর্তারা।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*


This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.