এশিয়ার শ্রেষ্ঠত্বের লড়াই সন্ধ্যায় শুরু

স্পোর্টস ডেস্ক, পিটিবিনিউজ.কম
এশিয়ার সবচেয়ে বড় ক্রিকেট আসর এশিয়া কাপ। আগামী বছর ইংল্যান্ডে বসবে বিশ্বকাপ ক্রিকেটের আসর। তার আগে এশিয়ার শ্রেষ্ঠত্বের লড়াইয়ে মাঠে নামছে এশিয়ার ছয়টি দেশ। সংযুক্ত আরব আমিরাতে বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কার ম্যাচ দিয়ে মাঠে গড়াবে টুর্নামেন্টের ১৪তম আসরটি। এর মধ্য দিয়ে অপেক্ষার পালা শেষ হচ্ছে। আর মাত্র কয়েক ঘণ্টা পর মরুর বুকে বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কার ম্যাচ দিয়ে পর্দা উঠতে যাচ্ছে এই আসরের। গত আসর টি-টুয়েন্টি ফরম্যাটে হলেও এবারকার আসর অনুষ্ঠিত হবে ওয়ানডে ফরম্যাটে। ম্যাচগুলো শুরু হবে বাংলাদেশ সময় বিকাল সাড়ে ৫টায়। এদিকে, ২০১২ আর ২০১৬ সালে রানার্স আপ হওয়ার আক্ষেপ ঘোচানোর জন্য আত্মবিশ্বাস নিয়েই মাঠে নামবে মাশরাফিবাহিনী। আজ শনিবার বাংলাদেশ সময় বিকাল সাড়ে ৫টায় সংযুক্ত আরব আমিরাতের মাঠ দুবাই আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে এই ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে।

এবারের এশিয়া কাপে অংশ নেওয়া দলগুলো হচ্ছে- বাংলাদেশ, ভারত, পাকিস্তান, শ্রীলঙ্কা, আফগানিস্তান ও হংকং। এর মধ্যে বাংলাদেশ পড়েছে ‘বি’ গ্রুপে। তাদের গ্রুপসঙ্গী শ্রীলঙ্কা ও আফগানিস্তান। অন্যদিকে ‘এ’ গ্রুপের দলগুলো হচ্ছে ভারত, পাকিস্তান ও হংকং। গ্রুপপর্বের খেলা শেষে দুই গ্রুপ থেকে শীর্ষ দুইটি করে দল উঠবে সুপার ফোরে। সেখানে প্রতিটি দল একে অপরের বিপক্ষে খেলবে। সেখান থেকে শীর্ষ দুই দল খেলবে ২৮ সেপ্টেম্বরের ফাইনাল।

এবারের আসরে সবচেয়ে ফেভারিট দল মানা হচ্ছে পাকিস্তানকে। গেল বছর চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি জেতা দলটি বেশ ভারসাম্যপূর্ণ দল নিয়েই আমিরাতে গিয়েছে। ফখর জামান, ইমাম উল হকদের মতো ব্যাটসম্যানদের পাশাপাশি হাসান আলীর মতো প্রতিশ্রুতিশীল বোলার রয়েছে দলটিতে। আরব আমিরাতের কন্ডিশনও দলটির খুব চেনা। অন্য দলগুলোর চেয়ে সরফরাজ আহমেদের দলটিই আমিরাতের কন্ডিশনে সবচেয়ে বেশি খেলেছে।

এদিকে এশিয়া কাপে ভারত বরাবরই সফল দল। টুর্নামেন্টে সর্বোচ্চ ছয় বার শিরোপা জিতেছে তারা। বর্তমান চ্যাম্পিয়নও ভারত। এবারো অন্যতম ফেভারিট তারা। তবে নিয়মিত অধিনায়ক বিরাট কোহলির অনুপস্থিতি দলটিকে কিছুটা দুর্বল করে দিয়েছে বলে মনে করেন অনেক বিশ্লেষক। যদিও মার্চে কোহলিকে ছাড়াই নিদাহাস ট্রফি জিতেছিলো রোহিত শর্মার দল।

ভারতের পর সাফল্যের বিবেচনায় এশিয়া কাপের সফল দল শ্রীলঙ্কা। তবে দলটি এবার ইনজুরির সমস্যায় জর্জরিত। আরব আমিরাতে পাড়ি দেয়ার আগেই ছিটকে যান টেস্ট অধিনায়ক দিনেশ চান্ডিমাল। আসর শুরুর মাত্র একদিন আগে ছিটকে যান অলরাউন্ডার দানুশকা গুনাথিলাকা। এদিকে সন্তানসম্ভবা স্ত্রীর পাশে থাকতে প্রথম দুই ম্যাচে থাকবেন না আকিলা ধনাঞ্জয়াও।

বাংলাদেশ এশিয়া কাপের ফাইনালে উঠেছে দুইবার। সর্বশেষ ২০১৬ সালে ঘরের মাঠের ফাইনালে ভারতের কাছে হেরে যায় টাইগাররা। সেটি ছিলো অবশ্য টি-টুয়েন্টি ফরম্যাটে। এবার ওয়ানডে ফরম্যাটে ফিরেছে টুর্নামেন্টটি। আর এই ফরম্যাটে টাইগাররা বরাবরই দুর্দান্ত। নিজেদের দিনে যেকোনো দলকেই হারিয়ে দেওয়ার সামর্থ্য রাখে মাশরাফী বিন মোর্ত্তজার দলটি। যদিও আরব আমিরাতের কন্ডিশন কিছুটা দুশ্চিন্তায় রেখেছে টাইগারদের।

এদিকে আফগানিস্তান বর্তমান ক্রিকেটের সবচেয়ে উদীয়মান শক্তি। তারাও জানান দিতে চাইবে নিজেদের সামর্থ্য। আমিরাতের কন্ডিশন তাদের অনেকটাই পরিচিত। ফলে সেই সুবিধা নিয়ে চ্যালেঞ্জ জানাতে পারে রশিদ খানরাও। আইসিসি’র সদস্য রাষ্ট্র হংকং স্বাগতিক আমিরাতকে হারিয়েই এশিয়া কাপে খেলতে গিয়েছে। উপমহাদেশীয় ক্রিকেটারে ঠাঁসা দলটি এই আসরে নিজেদের উপস্থিতি জানান দিতে সর্বোচ্চ চেষ্টাই করবে।

অপরদিকে সাকিব আল হাসান এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিলের টুইটারে এক টুইটে বলেন, অবশ্যই আমরা আত্মবিশ্বাসী। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে আমরা ভালো একটি সিরিজ কাটিয়েছি। বিশেষ করে ওয়ানডে ও টি-টুয়েন্টিতে। আমরা সেই আত্মবিশ্বাস নিয়েই এশিয়া কাপে নামতে চাই। তিনি আরো বলেন, আমরা এখনো এতকিছু ভাবিনি। আমরা ম্যাচ বাই ম্যাচ এগোবো। আর লক্ষ্য তো অবশ্যই শিরোপা। সেটা জেতার জন্যই এখানে এসেছে সবাই। আগে আমাদের নিজেদের কাজটা ঠিকমত সারতে হবে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*


This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.