নীলফামারীতে ঝুঁকিপূর্ণ বাঁশের সাকোঁ দিয়ে যাতায়াত

আবদুল গফুর, নীলফামারী প্রতিনিধি, পিটিবিনিউজ.কম
নীলফামারীর ডোমার উপজেলার বোড়াগাড়ী ইউনিয়নের ওপর দিয়ে বয়ে যাওয়া চেকাডারা নদীর বাবুর বান নামক স্থানে একটি ব্রীজের অভাবে ঝুঁকি নিয়ে বাঁশের সাকোঁ দিয়ে শিক্ষার্থী ও গ্রামবাসীকে নিয়মিত যাতায়াত করতে হচ্ছে।

ডোমার উপজেলার বোড়াগাড়ী ইউনিয়নের বাবুর বান, নিমোজখানা ও শিবগজ্ঞ গ্রামের বাসিন্দাদের উপজেলা সদরের যাতায়াতের একমাত্র সহজ পথ হচ্ছে এই নদী পথটি। কিন্তু এখানে ব্রীজ না থাকায় দীর্ঘদিন ধরে বাঁশের সাকোঁর ওপর দিয়ে যাতায়াত করতে হচ্ছে তাদের। ওই গ্রামগুলোর স্কুল-কলেজ পড়ুয়া শিক্ষার্থীদেরও প্রতিদিন ঝুঁকি নিয়ে পারাপার হতে হয়। সাকোঁটি দিয়ে চলাচল করতে গিয়ে অনেকে পানিতে পড়ে যাওয়ারও ঘটনা ঘটেছে। এছাড়া গত বছর সাকোঁটি বন্যার পানিতে ডুবে যায়। সেই সময় চরম দুর্ভোগে পড়তে হয় ছাত্র-ছাত্রীসহ এলাকাবাসিকে। দীর্ঘদিন ধরে এলাকাবাসি ওই স্থানে একটি ব্রীজ নির্মাণের দাবি করে আসলেও কেউ কোনো পদক্ষেপ নেননি।

নিমোজখানা স্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষার্থী মহাদেব, কাজল চন্দ্র, তুলসি রানী জানান, ঝুঁকি নিয়ে তাদের নিয়মিত যাতায়াত করতে হয়। বর্ষায় বাঁশের সাঁকোটি ভেঙ্গে গেলে প্রায় পাঁচ কিলোমিটার ঘুরে কলেজে যেতে হয় বলে জানান তারা।

নদীর তীরে অবস্থিত শিবগঞ্জ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক সুমি আকতার, মাধবী রানী, মোনা সরকার জানান, আমরা বিদ্যালয় শুরু ও ছুটির সময় কখন কোনো অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটে যায় কি-না এ নিয়ে দুঃচিন্তায় থাকি। বর্তমানে বাঁশের সাকোঁটি নরবরে হয়ে যাওয়ায় নদীর ওপারের বেশির ভাগ শিক্ষার্থী বিদ্যালয়ে আসা বন্ধ করে দিয়েছে বলে জানান তারা।

গোপাল চন্দ্র রায়, বিকাশ চন্দ্র রায়, হরিহর চন্দ্র রায়, পরিমল চন্দ্র রায়, বিষ্ণু চক্রবর্তীসহ অনেক এলাকাবাসী জানান, নদীতে ব্রীজ না থাকার কারণে গ্রামে এ্যাম্বুলেন্স বা অন্য কোনো গাড়ি ঢুকতে না পারায় তাদের চরম সমস্যায় পড়তে হয়।

বোড়াগাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তোফায়েল আহমেদ জানান, স্থানীয় সংসদ সদস্য আফতাব উদ্দিন সরকার আমাকে নদীর ওপরে দ্রুত ব্রীজ নির্মাণের আশ্বাস দিয়েছেন।

স্থানীয় সরকার ও প্রকৌশল অধিদপ্তরের ডোমার উপজেলা প্রকৌশলৗ আব্দুর রউফ জানান, চেকাডারা নদীর ওপর ব্রীজ নির্মাণের জন্য আমরা ইতমধ্যে স্থানীয় সাংসদের সুপারিশ নিয়ে উধ্বর্তন কর্তৃপক্ষের কাছে প্রেরণ করেছি।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*


This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.