সিরিজ জয়ে দল নিয়ে গর্বিত বাংলাদেশ কোচ

ক্রীড়া প্রতিবেদক, পিটিবিনিউজ.কম
স্টিভ রোডস বাংরাদেশ ক্রিকেট দলের প্রধান কোচের দায়িত্ব নেওয়ার পর প্রথম ম্যাচের প্রথম সকালেই ৪৩ রানে অলআউট দল। দুই টেস্ট মিলিয়ে পাঁচ দিনও খেলতে পারেনি দল। প্রধান কোচ হিসেবে দায়িত্বের শুরুটা বুঝি এর চেয়ে বাজে হতে পারতো না! কিন্তু সাদা পোশাকের ব্যর্থতা পেছনে ফেলে যেভাবে রঙিন পোশাকের দুটি সিরিজ জিতেছে বাংলাদেশ। তাতে দল নিয়ে গর্বিত প্রধান কোচ স্টিভ রোডস।

টেস্ট সিরিজে হোয়াইটওয়াশড হওয়ার পর ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি সিরিজ জিতে বৃহস্পতিবার সকালে দেশে ফিরেছে বাংলাদেশ দল। কোচ হিসেবে প্রথম অভিযানে দলের সামগ্রিক পারফরম্যান্সে খুশি নতুন কোচ রোডস। তিনি বলেন, টেস্ট সিরিজটি কঠিন ছিল। বেশ ভুগতে হয়েছে আমাদের। তবে ছেলেরা যেভাবে ঘুরে দাঁড়িয়েছে, তাতে আমি সন্তুষ্ট। ওয়ানডে সিরিজ জিতব বলে আমাদের আশা ছিল আগেই। সেটি পূরণ করতে পারা ছিলো দারুণ। টি-টোয়েন্টি সিরিজ এসেছে বিস্ময় হয়ে। শেষ দুটি ম্যাচে আমরা সত্যিই ভালো খেলেছি। দুটি ট্রফি জিততে পেরে আমি উচ্ছ্বসিত।

কোচ আলাদা করে বললেন শেষ টি-টোয়েন্টিতে ৩২ বলে ৬১ রান করা লিটন দাসের কথা। স্টিভ রোডস বলেন, লিটনকে নিয়ে আমি খুবই সন্তুষ্ট। শেষ ম্যাচে দুর্দান্ত খেলেছে।

ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি সিরিজ জয়ে মূল কৃতিত্ব কোচ দিলেন দুই অধিনায়ক ও বোলারদের। তিনি বলেন, ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টিতে দুই অধিনায়কই বোলারদের সামলেছে দারুণভাবে। দারুণ কিছু স্পিনার আছে আমাদের। আর সত্যি বলতে, পেসাররাও ওয়েস্ট ইন্ডিজের চেয়ে বেশি কার্যকর ছিলো। আমি খুবই খুশি। এখন টেস্ট ম্যাচের জন্য কিছু দ্রুতগতির ও লম্বা পেসার খুঁজে বের করতে হবে আমাদের।

টেস্ট সিরিজের ব্যর্থতা অবশ্য ভাবনায় আছে রোডসের। প্রথম টেস্টে বাজে ব্যাটিংয়ের খানিকটা দায় দিলেন টসে হারকেও। সব মিলিয়ে টেস্টে ব্যাটসমানদের আরও আঁটসাঁট দেখতে চান কোচ। তিনি বলেন, প্রথম টেস্টে টস খুবই গুরুত্বপূর্ণ ছিলো। উইকেট সিমিং ছিলো, বাউন্স ও সুইং ছিলো। রোচ, গ্যাব্রিয়েল ও কামিন্সকে নিয়ে গড়া বোলিং আক্রমণ ডিউক বলকে খুব ভালোভাবে কাজে লাগিয়েছে। অ্যান্টিগায় বেশিরভাগ দলের ব্যাটিংই ধুঁকত। টেস্ট ম্যাচে আমাদের ব্যাটিং দৈন্য বেশ ফুটে উঠেছে। টেস্ট ম্যাচের ব্যাটিংয়ে উন্নতি করতে আমাদের একটু আঁটসাঁট হতে হবে। তবে আমাদের দারুণ সব ক্রিকেটার আছে। দেশের বাইরে স্রেফ কন্ডিশন ও প্রতিপক্ষের সঙ্গে দ্রুত মানিয়ে নিতে হবে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*


This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.