যমুনা ফিউচারে ভারতীয় ভিসা কেন্দ্র উদ্বোধন করলেন রাজনাথ সিং

নিজস্ব প্রতিবেদক, পিটিবিনিউজ.কম
দেশের সর্ববৃহৎ শপিংমল যমুনা ফিউচার পার্কে উদ্বোধন হলো অত্যাধুনিক প্রযুক্তি সুবিধা সম্পন্ন ভারতীয় ভিসা কেন্দ্র। শনিবার বেলা ১১টার পর শপিংমলের গ্রাউন্ড মাইনাস-১ (বেজমেন্ট বি-১) দক্ষিণ কোর্টে এ কেন্দ্রটি উদ্বোধন করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল ও ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন- ভারতের হাইকমিশনার হর্ষবর্ধন শ্রিংলা, যমুনা গ্রুপের চেয়ারম্যান বিশিষ্ট শিল্পপতি নুরুল ইসলাম, যমুনা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শামীম ইসলাম ও পরিচালক মনিকা নাজনিন ইসলাম। উদ্বোধনের পর একজন বাংলাদেশির হাতে প্রতীকী ভিসা তুলে দেন রাজনাথ সিং।

ঢাকায় ভারতীয় হাইকমিশন সূত্র জানিয়েছে, প্রায় সাড়ে ১৮ হাজার বর্গফুটজুড়ে নতুন এ কেন্দ্রে একই সময়ে ৭০০ লোক অবস্থান করতে পারবেন। ৪৮টি কাউন্টারে ভিসাপ্রত্যাশীদের সেবা দেয়া হবে। প্রতিদিন অন্তত ৬ হাজার ব্যক্তি পাসপোর্ট জমা দিতে পারবেন।

সূত্র বলছে, নতুন এ ভিসা আবেদন কেন্দ্রটি হবে অত্যাধুনিক প্রযুক্তি সুবিধা সম্পন্ন ‘মডেল ভিসা কেন্দ্র’। সব ধরনের ভিসার আবেদন করা যাবে। সুপরিসর এ কেন্দ্রে থাকছে কম্পিউটার নিয়ন্ত্রিত টোকেন ভেন্ডিং মেশিন (প্রতীক্ষা সময় নির্দেশিত), আরামদায়ক বসার ব্যবস্থা, কফি ও কোমল পানীয় ভেন্ডিং মেশিন ও খাবার সুবিধা। এছাড়া জ্যেষ্ঠ নাগরিক, নারী, মুক্তিযোদ্ধা ও ব্যবসা ভিসা আবেদনের জন্য আলাদা কাউন্টার থাকছে। একটি বিশেষ সহায়তা ডেস্ক এবং প্রিন্টিং, ফটোকপি ইত্যাদি সেবার জন্যও থাকছে বিশেষ কাউন্টার।

সূত্র মতে, মতিঝিল ও উত্তরায় অবস্থিত ভিসা আবেদন কেন্দ্র আগামীকাল রোববার থেকে যমুনা ফিউচার পার্ক কেন্দ্রে প্রতিস্থাপিত হবে। গুলশান ও মিরপুর রোড ভিসা আবেদন কেন্দ্র ৩১ আগস্টের মধ্যে স্থানান্তরিত হবে এখানে। এর পর থেকে ঢাকায় এটিই হবে একমাত্র ভিসা আবেদন কেন্দ্র। পূর্বনির্ধারিত সাক্ষাৎকার সূচি (ই-টোকেন) ছাড়াই এখানে ভিসার আবেদন করতে পারবেন ভিসাপ্রত্যাশীরা।

কর্তৃপক্ষ বলছে, ভারতীয় ভিসা আবেদন প্রক্রিয়া আরও সহজ ও সমন্বিত করা এবং ভারত-বাংলাদেশের মানুষে মানুষে সম্পর্ক শক্তিশালী করার জন্য ভারতীয় হাইকমিশনের অব্যাহত প্রচেষ্টার প্রতিফলন এ কেন্দ্র। এটি বাস্তবায়ন করা হচ্ছে ভারতীয় স্টেট ব্যাংকের সহযোগিতায়।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*