ঈদে যানজট ঠেকাতে বিআরটিএকে তিন নির্দেশনা সেতুমন্ত্রীর

ফাইল ছবি।

নিজস্ব প্রতিবেদক, পিটিবিনিউজ.কম
আসন্ন ঈদ-উল-ফিতরে সড়কে যানজট ঠেকাতে ফিটনেসবিহীন গাড়ি উঠিয়ে নেওয়াসহ তিনটি নির্দেশনা দিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেছেন, রাস্তায় যানজটের অন্যতম কারণ ফিটনেসবিহীন গাড়ি। এসব গাড়ি রাস্তায় বিকল হয়ে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি করে। আজ রোববার (৩ জুন) দুপুরে রাজধানী ঢাকার এলেনবাড়িতে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) সদর দপ্তরে এক অনুষ্ঠানে তিনি এসব বলেন। ঈদ সামনে রেখে সড়ক-মহাসড়কে যানজট নিরসনে ফিটনেসবিহীন গাড়ি না চালানোর বিষয়ে সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে ঈদ প্রস্তুতি সভা করে বিআরটিএ।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ঈদে সড়ক যানজটমুক্ত রাখতে হলে কয়েকটি বিষয় খুব গুরুত্বপূর্ণ। বিআরটিএকে আমি তিনটি নির্দেশনা দিবো, এগুলো পালন করতে হবে। একটি হলো- রাস্তায় ফিটনেসবিহীন কোনো গাড়ি না থাকার নিশ্চয়তা চাই। আরেকটি হলো- উল্টো পথে গাড়ি চলাচল বন্ধ করা। উল্টো পথে গাড়ি চলাচল বন্ধ রাখতে হবে। আর বাকিটা হলো- যেকোনো মূল্যে রাস্তা খোঁড়াখুঁড়ি বন্ধ রাখতে হবে।

সেতুমন্ত্রী বলেন, রাস্তায় যানজটের অন্যতম কারণ ফিটনেসবিহীন গাড়ি। এসব গাড়ি রাস্তায় বিকল হয়ে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি করে। উল্টো পথে গাড়ি চলাচল বন্ধ করতে হবে এবং করতেই হবে।

এ সময় বাস মালিকদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, রাস্তা থেকে ফিটনেসবিহীন গাড়ি উঠিয়ে নিতে হবে। উল্টো পথে গাড়ি চলাচল বন্ধ করতে হবে এবং করতেই হবে। তিনি আরো বলেন, আজ থেকে ঢাকায় সড়কের উন্নয়নের জন্য সব ধরনের খোঁড়াখুঁড়ি বন্ধ থাকবে। ঈদের পর এই কাজ শুরু হবে। আর ৮ জুন থেকে মহাসড়কে রাস্তা নির্মাণের কোনো কাজ হবে না। এই কাজও ঈদের পর শুরু হবে। ঈদের আগে পরে মোট ১৫ দিন কোনো রাস্তায় কোনো নির্মাণ কাজ হবে না।

প্রস্তুতি সভায় বাস মালিকদের পক্ষ থেকে বলা হয়, ঈদের সময় কিছু বাসে রং করা হয়। রং করা মানেই এসব ফিটনেসবিহীন গাড়ি নয়। মানিকগঞ্জ-রাজবাড়ী মহাসড়কের অবস্থা ভালো নয়। এই মহাসড়কে দৌলতদিয়া ও পাটুরিয়া ফেরিঘাটে ইচ্ছা করে যানজটের সৃষ্টি করে ফেরিঘাট-সংশ্লিষ্ট লোকজন, যার কারণে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়। ফেরি ভালো থাকলেও চালানো হয় না এবং ধীর গতিতে চালানো হয়। এ ছাড়া কুমিল্লা, গাজীপুর চৌরাস্তা এবং চন্দ্রা এলাকায় যানজট সৃষ্টির জন্য ফিটনেসবিহীন গাড়ি জমা করে রাখাকে দায়ী করেন বাস মালিকেরা। মহাসড়কে যেখানে-সেখানে ট্রাক দাঁড় করানোর কারণেও যানজটের সৃষ্টি হয়।

‘অসাধু প্রকৌশলীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে’
দ্রুত এসব নির্দশনা বাস্তবায়নের তাগিদ দিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, সরকারের হাতে বেশি সময় নেই। এক পশলা বৃষ্টি হলে রাস্তা নাই হয়ে যায়। দেশের মানুষের সঙ্গে এই প্রতারণা আমরা কেন করছি? কিছু কিছু প্রকৌশলীর কারণে সব প্রকৌশলী দায়ী হবেন কেনো? অসাধু প্রকৌশলীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে। যেসব ঠিকাদার ঠিকমতো কাজ করেন না, তাদের বাদ দিয়ে দিতে হবে।রাস্তা নির্মাণে ত্রুটি ঠিক করতে হবে।

ব্রিজের টোল দ্রুত পরিশোধের জন্য পরিবহন ড্রাইবারদের ভাংতি টাকা রাখার পরামর্শ দিয়ে সেতুমন্ত্রী বলেন, টোল দিতে গেলে আপনারা ভাংতি টাকা নিয়ে যাবেন। না হলে টোল দিতে দেড়ি হয়। নোট ভাংতি করতে তো সময় লাগে।

ঈদ প্রস্তুতি সভায় উপস্থিত ছিলেন বিআরটিএর চেয়ারম্যান মো. মশিয়ার রহমান, সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব মো. নজরুল ইসলাম, ঢাকা সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক খন্দকার এনায়েত উল্লাহ, প্রাবন্ধিক ও কলাম লেখক সৈয়দ আবুল মকসুদ প্রমুখ।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*