ঢাক-চট্টগ্রাম মহাসড়ক আজও যানজটে স্থবির

বিশেষ সংবাদদাতা, পিটিবিনিউজ.কম
ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে ফেনীর মহিপালে আটকে পড়া গাড়ির চাপ আর দুটি সেতুতে টোল আদায়ে ধীরগতির কারণে টানা তৃতীয় দিনের মত আজও বুধবার যানজটে স্থবির হয়ে আছে। গত সোমবার রাত থেকে মহাসড়কের চান্দিনা উপজেলার কাঠেরপুল থেকে গোমতী সেতু পার হয়ে মেঘনা সেতুর পর নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ পর্যন্ত আজ বুধবার ৭৫ কিলোমিটার দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। হাজার হাজার যাত্রীবাহী গাড়ি, রোগীবাহী অ্যাম্বুল্যান্স, জ্বালানী তেলবাহী গাড়ী, চাল বোঝাই ট্রাক ও বিদেশগামী যাত্রী আটকা পড়ে চরম দুর্ভোগের শিকার হচ্ছে। তিন দিন আগ থেকে শুরু হওয়া যানজট বুধবারও রয়েছে।

মঙ্গলবার দুপুরে ফেনীর ফতেহপুর রেল ওভারপাসের দুটি লেন চলাচলের জন্য খুলে দেয়া হয়। ফলে ফেনীতে জট কমে গেলেও মহাসড়কের ঢাকামুখী দাউদকান্দি অংশে নতুন করে যানজট বাড়তে শুরু করেছে। মঙ্গলবার বিকাল থেকে বুধবার সকালের মধ্যে কুমিল্লা থেকে ঢাকা পর্যন্ত যেতে সময় লেগেছে ১০-১২ ঘণ্টা।

এর মধ্যে মঙ্গলবার দিবাগত রাতে গোমতী ও মেঘনা সেতুতে মালবোঝাই দুটি ট্রাক বিকল হয়ে পড়লে উভয় দিকে দুই ঘণ্টা যান চলাচল বন্ধ থাকে। ফলে যানজট আরো দীর্ঘ হয়। গজারিয়া হাইওয়ে পুলিশ ও টোল আদায়কারী প্রতিষ্ঠানের রেকার দিয়ে দুই ঘণ্টার চেষ্টায় বিকল গাড়ি দুটি সরিয়ে নিলে ধীরে ধীরে যানবাহন চলাচল শুরু করে। কিন্তু যানবাহনগুলো দুটি সেতুর ওপর দিয়ে দুই লেন হয়ে ধীরগতিতে চলাচল করায় দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। ঘণ্টার পর ঘণ্টা যানজটে মহাসড়কে আটকা পড়ে চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছে সাধারণ মানুষ। এতে কর্মস্থল অভিমুখী মানুষ চরম দুর্ভোগে পড়ে। অনেককে হেঁটে গন্তব্যে যেতে হয়।

কুমিল্লাগামী তিসা পরিবহনের যাত্রী দেলোয়ার হোসেন ঝন্টু জানান, কাঁচপুর সেতু থেকে মেঘনা সেতু পার হতেই তাঁদের পাঁচ থেকে ছয় ঘণ্টা বাসে বসে থাকতে হয়েছে। এতে আমাদের ভোগান্তির শেষ নেই।

হাইওয়ে পুলিশ জানায়, যানবাহনগুলো দ্রুত গতিতে গোমতী, মেঘনা ও কাঁচপুর ব্রিজের কাছে এসে জড়ো হয়ে মেঘনা ও গোমতীর টোল প্লাজায় সারিবদ্ধ হয়। এর পর সেতুতে ওঠার সময় যানবাহনের গতি অন্তত ৮০ ভাগ কমে যায়। চার লেনের গাড়িগুলো দুই লেনের সেতুতে ধীর গতিতে চলায় যানজট দেখা দেয়।

দাউদকান্দি হাইওয়ে পুলিশের অফিসার ইনচার্জ মো. আবুল কালাম আজাদ জানিয়েছেন, দাউদকান্দির টোল প্লাজায় একসঙ্গে এত যানবাহনের ওজন নিয়ন্ত্রণ, টোল আদায় ও চলাচলের পাসিং দেয়া যাচ্ছে না। তাই যানজট দীর্ঘায়িত হচ্ছে। এ সমস্যা কাটিয়ে উঠতে হাইওয়ে পুলিশ কাজ করছে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*