খুলনার নির্বাচন গণতন্ত্রের বিজয়: নাসিম

আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য এবং স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম।ফাইল ছবি।

নিজস্ব প্রতিবেদক, পিটিবিনিউজ.কম
খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিজয়, গণতন্ত্রের বিজয় হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও ১৪ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিম। তিনি বলেছেন, জনগণের ভোটের অধিকার প্রয়োগের বিজয় হয়েছে। বর্তমান নির্বাচন কমিশনের মাধ্যমে সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন হয়েছে এবং জনগণ ভোট দিয়েছে। আজ বুধবার (১৬ মে) ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানোর পর তিনি এ মন্তব্য করেন। বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইট সফলভাবে উৎক্ষেপণ উপলক্ষে কেন্দ্রীয় ১৪ দলের পক্ষ থেকে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা জানানো হয়।

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মোহাম্মদ নাসিম বলেন, বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের মধ্য দিয়ে মহাকাশ বিজয় করেছি। আমরা মহাকাশে বঙ্গবন্ধুর জয় বাংলা স্লোগান পৌঁছে দিয়েছি। বাংলার সার্বিক উন্নয়ন ও ভবিষ্যৎ প্রজন্মের স্বার্থে আজকে এই মহাকাশ বিজয়। তিনি বলেন, খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে সুষ্ঠু নির্বাচন হবে কি না, তা নিয়ে অনেক আশঙ্কা ছিলো। সুষ্ঠু, অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের মধ্য দিয়ে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তির বিজয় হয়েছে। আওয়ামী লীগের প্রার্থী তালুকদার আবদুল খালেদ একজন পরিচ্ছন্ন ও সফল মেয়র ছিলেন। খুলনার জনগণ তাদের ভুল বুঝতে পেরে তাঁকে বিজয়ী করেছে। বর্তমান নির্বাচন কমিশনের মাধ্যমে সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন হয়েছে এবং জনগণ ভোট দিয়েছে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, নির্বাচন সুষ্ঠু হয়েছে। বিএনপির প্রার্থীর একটি কেন্দ্র নিয়ে অভিযোগ ছিলো, যা নির্বাচন কমিশন বন্ধ করে দিয়েছে। নির্বাচন হলে জয়-পরাজয় থাকবে। কিন্তু যেকোনো জয়-পরাজয়কে শান্ত মনে গ্রহণ করাটাই হচ্ছে গণতন্ত্রের আচরণ। এই নির্বাচনের মধ্য দিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নের যাত্রা এবং শান্তির পথে বাংলাদেশ—এটা প্রমাণ হয়ে গেছে।

এ সময় এক প্রশ্নের জবাবে নাসিম বলেন, আদালতের রায়ে সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া কারাগারে আছেন। তাঁর চিকিৎসা নিয়ে আওয়ামী লীগ কেনো রাজনীতি করবে? রাজনীতি করার প্রশ্নই ওঠে না। সার্বিকভাবে মর্যাদার সঙ্গে তাঁর চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে, বরং বিএনপিই খালেদা জিয়ার চিকিৎসা নিয়ে রাজনীতি করছে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় ১৪ দলের শরিক দল বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি ও সমাজকল্যাণমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন, তরিকত ফেডারেশনের চেয়ারম্যান সৈয়দ নজিবুল বশর মাইজভান্ডারি, সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়ুয়া, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জাসদ) সভাপতি শরীফ নুরুল আম্বিয়া, জাসদের সাধারণ সম্পাদক শিরীন আখতার প্রমুখ।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*