২২ মার্চ গাইবান্ধা-১ নির্বাচনী এলাকায় ছুটি ঘোষণা

নিজস্ব প্রতিবেদক, পিটিবিনিউজ.কম। ওয়েবসাইট: www.ptbnewsbd.com

0

গাইবান্ধা-১ (সুন্দরগঞ্জ উপজেলা) আসনের উপনির্বাচনের ভোটগ্রহণ হবে ২২ মার্চ। ওই দিন বুধবার জেলার ২০৯টি কেন্দ্রে সকাল ৮টা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হবে। চলবে বিকাল ৪টা পর্যন্ত। নির্বাচনে ১৫টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভার তিন লাখ ৩৩ হাজার ৪২৬ জন ভোটার এদিন তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবে। নির্বাচন উপলক্ষে ২২ মার্চ নির্বাচনী এলাকায় সাধারণ ছুটি ঘোষণা করেছে সরকার। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সোমবার (২০ মার্চ) এ সংক্রান্ত একটি প্রজ্ঞাপন জারি করেছে।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, ২২ মার্চ গাইবান্ধা-১ আসনের উপনির্বাচন উপলক্ষে নির্বাচনী এলাকার সকল সরকারি, আধা সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত ও বেসরকারি অফিস, প্রতিষ্ঠান, সংস্থায় কর্মরত কর্মকর্তা ও কর্মচারী এবং সরকারি, বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারীদের স্ব স্ব ভোটাধিকার প্রয়োগ ও ভোটগ্রহণের সুবিধার্থে এ সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, সংশ্লিষ্ট নির্বাচনী এলাকায় যদি ২২ মার্চ কোনো পাবলিক পরীক্ষা থাকে তাহলে পরীক্ষার কেন্দ্রসমূহ ও পরীক্ষা সংশ্লিষ্ট শিক্ষক, কর্মচারী সাধারণ ছুটির আওতা বহির্ভূত থাকবে।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) খান মো. নুরুল হুদা। ফাইল ছবি।

সুন্দরগঞ্জ উপনির্বাচন নিরপেক্ষ ও স্বচ্ছতা হবে: সিইসি
এদিকে, গাইবান্ধা-১ (সুন্দরগঞ্জ উপজেলা) আসনের উপনির্বাচন অবাধ ও নিরপেক্ষ এবং স্বচ্ছতার সঙ্গে অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা। ২২ মার্চ অনুষ্ঠিতব্য এই নির্বাচন অবাধ-নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠুভাবে সম্পাদনে সংশ্লিষ্ট সকল পক্ষের আন্তরিক সহযোগিতা কামনা করেছেন তিনি। ১৫ মার্চ বিকালে জেলা কালেক্টরেট ভবনে গাইবান্ধা জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের নির্বাচন কর্মকর্তা, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীসমূহ ও প্রার্থীদের সঙ্গে আইন-শৃঙ্খলা সংক্রান্ত এক বৈঠকে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সিইসি একথা বলেন।

নূরুল হুদা বলেন, এই আসনে এমন উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে, যাতে ভোটাররা সহজে ভোটকেন্দ্রে যেতে পারেন এবং উৎসবমুখর পরিবেশে ভোট দিয়ে তাদের পছন্দের প্রার্থীকে নির্বাচিত করতে পারেন। এছাড়া, দুর্গম এলাকা বিশেষ করে চরাঞ্চলে ‘বিশেষ নিরাপত্তামূলক’ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। যাতে উপজেলার মূল ভূখন্ডের ন্যায় এসব এলাকায়ও শান্তিপূর্ণ ভোট অনুষ্ঠিত হয়।

উল্লেখ্য, সরকার দলীয় সাংসদ মঞ্জুরুল ইসলাম লিটন ২০১৬ সালের ৩১ ডিসেম্বর সুন্দরগঞ্জ উপজেলার বামনডাঙ্গা রেল স্টেশনের কাছে শাহবাজ গ্রামের নিজ বাড়িতে দৃষ্কৃতকারীদের গুলিশে নিহত হলে এই আসনটি শূন্য হয়।

সম্পাদনা: রাজু আহমেদ।   

Share on FacebookShare on Google+Tweet about this on TwitterPrint this page