বগুড়ায় পাওনা টাকা আনতে গিয়ে নিখোঁজ যুবকের লাশ উদ্ধার

বগুড়া সংবাদদাতা, পিটিবিনিউজবিডি.কম

0

বগুড়ায় পাওনা টাকা আনতে গিয়ে নিখোঁজ রেজাউল করিম (৩৫) নামে এক যুবকের আধপোড়া লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। আজ শুক্রবার নন্দীগ্রাম-শেরপুর সড়কের কদমকুড়ি এলাকা থেকে তাঁর লাশ উদ্ধার করা হয়। নিহত রেজাউল বগুড়া সদরের নামুজা ইউনিয়নের বামনপাড়ার হাফিজার রহমানের ছেলে। তিনি ‘একটি বাড়ি একটি খামার’ প্রকল্পের সুপারভাইজার হিসেবে বগুড়ার আদমদিঘী উপজেলায় কর্মরত ছিলেন।

বগুড়ার সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) গাজিউর রহমান জানান, সকালে নন্দীগ্রামের বুরইল ইউনিয়নের কদমকুড়ি সংলগ্ন বেজিগাড়ি এলাকায় তার লাশ পাওয়া যায়। তার মুখসহ শরীরের বেশকিছু অংশ পোড়া ছিলো। গামছা দিয়ে শ্বাস রোধ করে তাকে হত্যার পর আগুন ধরিয়ে দেয়া হয়েছিলো। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে বলে জানান তিনি।

প্রাথমিক তদন্তের বরাত দিয়ে এই সিনিয়র এএসপি বলেন, নন্দীগ্রাম উপজেলার বিআরডিবি অফিসের সহকারী গ্রাম উন্নয়ন কর্মকর্তা (এআরডিও) জিল্লুর রহমানকে বেশ কিছুদিন আগে রেজাউল করিম তার গ্রামের এক পরিচিতজনের চাকরির জন্য সাড়ে ছয় লাখ  টাকা দিয়েছিলেন। কিন্তু প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী চাকরি হয়নি, এরপর টাকা ফেরত দিতেও তালবাহনা করছিলেন জিল্লুর। বৃহস্পতিবার রাতে পাওনা টাকা নেওয়ার জন্য রেজাউল নন্দীগ্রামে আসেন। এরপর থেকে তার মোবাইল ফোন বন্ধ পাওয়া যায় বলে পরিবারের সদস্যরা জানান।

ঘটনার পর থেকে বিআরডিবি কর্মকর্তা জিল্লুর রহমান পলাতক রয়েছেন। পাওনা টাকা নিয়ে বিরোধে রেজাউল খুন হয়েছেন বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, বলেন তিনি।

সম্পাদনা: মোহাম্মদ সাব্বির।

Share on FacebookShare on Google+Tweet about this on TwitterPrint this page