দুর্ঘটনা রোধে সড়ক পরিবহনে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনাই বড় চ্যালেঞ্জ: ওবায়দুল

নিজস্ব প্রতিবেদক, পিটিবিনিউজবিডি.কম

0
 সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। ফাইল ছবি।
সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। ফাইল ছবি।

সড়ক দুর্ঘটনা রোধে সড়ক পরিবহনে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনাই সরকারের সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ বলে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। আজ মঙ্গলবার রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে নিসচা (নিরাপদ সড়ক চাই) ড্রাইভিং ও মেকানিক্যাল ট্রেনিং ইনস্টিটিউটের উদ্যোগে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত গাড়ী চালকদের মধ্যে সনদ বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি একথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ফোরলেন-এইটলেন, মেট্রোরেল, উড়াল সেতু ও বড় বড় সেতু নির্মাণ করা কোনো বড় চ্যালেঞ্জ নয়। সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ হলো সড়ক দুর্ঘটনা রোধ করে মৃত্যুর হার শূণ্যের কোঠায় নামিয়ে আনা। আর এর জন্য সড়ক পরিবহনে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে হবে। আর এ লক্ষ্যে সরকার কাজ করে যাচ্ছে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, গাড়ীর চালকরা যেমন বেপরোয়া হলে সড়ক দুর্ঘটনা ঘটে তেমনি রাজনীতিবিদরাও বেপরোয়া হলে দেশের জন্য তা বড় ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়ায়। রাজনীতিবিদদের কথাবার্তা খুব সাবধানে বলা উচিত উল্লেখ করে তিনি বলেন, গাড়ীর চালকরা যেমন বেপরোয়া হয় তেমনি রাজনীতিবিদরাও মাঝে মাঝে বেপরোয়া হন। অনেক রাজনীতিবিদের মূখ থেকে শব্দ বোমা বের হয়। গাড়ীর চালকদের যেমন সাবধানে ও ট্রাফিক আইন মেনে গাড়ী চালানো দরকার তেমনি রাজনীতিবিদদেরও সাবধানে ও চিন্তা-ভাবনা করে কথা বলা উচিত বলেও উল্লেখ করেন সেতুমন্ত্রী।

রাজধানীর ফুটপাত দখলমুক্ত করে জনগণের চলাচলের সুযোগ করে দেয়ার জন্য সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহ্বান জানান সড়কপরিবহনমন্ত্রী। যা সড়ক দুর্ঘটনারোধে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে।

নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা)-এর প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সনদ বিতরণ অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বিশ্ব সাহিত্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি অধ্যাপক আবু সায়িদ, বিআরটিএ’র চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম এবং ওয়ালটনের নির্বাহী পরিচালক (পিআর এন্ড মিডিয়া) হুমায়ুন কবির।

নিসচা ড্রাইভিং ও মেকানিক্যাল ট্রেনিং ইনস্টিটিটিউটের উদ্যোগে চারশ’ জনকে গাড়ী চালনায় প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়। তাদের সকলকে সনদ প্রদানের কথা থাকলেও আজ ২৬০ জনকে সনদ প্রদান করা হয়। প্রশিক্ষণ প্রাপ্তদের মধ্যে ৮০ জন দেশের বাইরে রয়েছে। বাকীরা পেশাগত কারণে ব্যস্ত থাকায় অনুষ্ঠানে হাজির হতে পারেননি বলে জানানো হয়।

সম্পাদনা: রাজু আহমেদ।

Share on FacebookShare on Google+Tweet about this on TwitterPrint this page