দায়িত্বপ্রাপ্তির আগেই সনদে স্বাক্ষর!

সেন্ট্রাল ডেস্ক, পিটিবিনিউজ.কম। ওয়েবসাইট: www.ptbnewsbd.com

0
নৌ পরিবহন অধিদপ্তর

* নৌ অধিদপ্তরে এসব কি হচ্ছে? প্রশ্ন বিভিন্ন মহলের 
* অভিযোগ নাকচ নটিক্যাল সার্ভেয়ার গিয়াসউদ্দিনের 

কর্মস্থলে যোগদানের আগেই একাধিক সনদে স্বাক্ষর করার অভিযোগ উঠেছে ডিজি শিপিং নামে পরিচিত নৌ পরিবহন অধিদপ্তরের (ডস) নটিক্যাল সার্ভেয়ার এন্ড এক্সামিনার ক্যাপ্টেন গিয়াসউদ্দিন আহমেদের বিরুদ্ধে। পৃথক দুটি প্রশিক্ষণ- সনদে দেখা গেছে, সরকারি চাকরিতে যোগদানের দেড় বছরেরও বেশি সময় আগে তাতে স্বাক্ষর করেছেন তিনি। তবে অভিযোগ নাকচ করে দিয়ে ক্যাপ্টেন গিয়াসউদ্দিন দাবি করেন, একটি কুচক্রী মহলের ষড়যন্ত্রে তাঁর স্বাক্ষর জাল করে ওই ধরনের ভৌতিক সনদ তৈরি করা হয়েছে। খবর পাঠকের কণ্ঠ।

২০১১ সালের ৩১ মার্চ ইস্যু করা একটি সনদে উল্লেখ করা হয়, মোহাম্মদ রাকিবুল ইসলাম (ডিসচার্জ বুক নম্বর সি/ও/৪৬৩০), জন্মতারিখ : ২৩.১২.১৯৮৬, জন্মস্থান : ফেনী ১৫.০১.২০১১ তারিখ থেকে ২৪.০১.২০১১ তারিখ পর্যন্ত অনুষ্ঠিত ‘রাডার নেভিগেশন এ্যাট অপারেশন লেভেল (আইএমও মডেল কোর্স ১.০৮)’ শীর্ষক প্রশিক্ষণ কোর্সে অংশ নিয়ে সফলভাবে সম্পন্ন করেছেন। এসটিসিডব্লিউ ৯৫ রেজুলেশন ও কনভেনশন মেনে অনুষ্ঠিত এই প্রশিক্ষণ কোর্স নৌ পরিবহন অধিদপ্তর কর্তৃক অনুমোদিত।

অভিযোগ উঠেছে কর্মস্থলে যোগদানের আগেই এই সনদে স্বাক্ষর করেন ক্যাপ্টেন গিয়াসউদ্দিন আহমেদ

ইন্টারন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব মেরিটাইম টেকনোলজির (আইআইএমটি) প্যাডে ইস্যু করা সনদে ডস রেজিস্ট্রেশন নম্বর ০১০৫৮৩৩৮ উল্লেখ রয়েছে। সনদে একাধিক স্বাক্ষরের মধ্যে গিয়াসউদ্দিনের অস্পষ্ট স্বাক্ষরের নিচে পরিচয় হিসেবে ‘এক্সামিনার, ডিপার্টমেন্ট অব শিপিং’ লেখা রয়েছে।

২০১১ সালের ১৬ মে ইস্যুকৃত একটি সনদে উল্লেখ করা হয়, মো. হেদায়েত উল্লাহ ফারুকী (ডিসচার্জ বুক নম্বর সি/ও/৪৪৭০), জন্মতারিখ ০২.১২.১৯৮১, জন্মস্থান ফেনী ১০.০৮.২০১০ তারিখ থেকে ১৪.০৮.২০১০ তারিখ পর্যন্ত অনুষ্ঠিত ‘রাডার নেভিগেশন এ্যাট ম্যানেজমেন্ট লেভেল (আইএমও মডেল কোর্স ১.০৮)’ শীর্ষক প্রশিক্ষণ কোর্সে অংশ নিয়ে সফলভাবে সম্পন্ন করেছেন। এসটিসিডব্লিউ ৯৫ রেজুলেশন ও কনভেনশন মেনে অনুষ্ঠিত এই প্রশিক্ষণ কোর্স নৌ পরিবহন অধিদপ্তর কর্তৃক অনুমোদিত। এই সনদটিও ইন্টারন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব মেরিটাইম টেকনোলজির (আইআইএমটি) প্যাডে ইস্যু করা এবং এতে ডস রেজিস্ট্রেশন নম্বর ০১০৫৯১৫৪ উল্লেখ রয়েছে। এছাড়া এই সনদেও একাধিক স্বাক্ষরের মধ্যে গিয়াসউদ্দিনের অস্পষ্ট স্বাক্ষরের নিচে পরিচয় হিসেবে ‘এক্সামিনার, ডিপার্টমেন্ট অব শিপিং লেখা রয়েছে।

নটিক্যাল সার্ভেয়ার ক্যাপ্টেন গিয়াসউদ্দিন আহমেদ

উল্লেখিত দুটি সনদের ছায়ালিপি এ প্রতিবেদকের কাছে সংরক্ষিত আছে। তবে নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, ক্যাপ্টেন গিয়াসউদ্দিন আহমেদ সরকারি কর্ম কমিশনের (পিএসসি) পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে ২০১২ সালের ১৮ নভেম্বর নৌ পরিবহন অধিদপ্তরে ‘নটিক্যাল সার্ভেয়ার এন্ড এক্সামিনার’ পদে যোগদান করেন। এর আগে তিনি কখনো চুক্তিভিত্তিক কিংবা খন্ডকালীন হিসেবে অধিদপ্তরে কর্মরত ছিলেন না বলেও সূত্র নিশ্চিত করেছে। তাহলে কিভাবে তিনি ওই দুটি সনদে স্বাক্ষর করলেন তা নিয়ে সংশ্লিষ্ট মহলে শুরু হয়েছে ব্যাপক জল্পনা-কল্পনা। ভৌতিক বিষয়টি সম্পর্কে জানাজানি হলে বিভিন্ন মহল থেকে প্রশ্ন করা হচ্ছে- নৌ পরিবহন অধিদপ্তরের অভ্যন্তরে এসব কি হচ্ছে?

dos-1-t-2তবে বিষয়টি সম্পূর্ণ কাল্পনিক ও ভিত্তিহীন বলে দাবি করেছেন ক্যাপ্টেন গিয়াসউদ্দিন আহমেদ। তিনি এ প্রতিবেদককে বলেন, ওই দুটি সনদ যে সময়ে ইস্যু করা হয়েছে সে সময়ে তিনি দেশের বাইরে সমুদ্রগামী জাহাজে কর্মরত ছিলেন। তাই ওইসব সনদে তাঁর স্বাক্ষর করার প্রশ্নই ওঠে না।

ক্যাপ্টেন গিয়াস আরো বলেন, কোনো কুচক্রী মহল ষড়যন্ত্রমূলকভাবে তাঁকে ফাঁসানোর অথবা তাঁর ভামূর্তি ক্ষুন্ন করার জন্য এ ধরনের ভৌতিক সনদ তৈরি করে সেখানে তাঁর জাল স্বাক্ষর বসিয়েছে।

Share on FacebookShare on Google+Tweet about this on TwitterPrint this page