কলেজছাত্রী নার্গিস হত্যাচেষ্টা: বদরুলের বিচার শুরু

সিলেট সংবাদদাতা, পিটিবিনিউজ.কম। ওয়েবসাইট: www.ptbnewsbd.com

0
ফাইল ছবি।
ফাইল ছবি।

সিলেট সরকারি মহিলা কলেজের ছাত্রী খাদিজা বেগম নার্গিস হত্যাচেষ্টা মামলায় শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (শাবিপ্রবি) ছাত্রলীগ নেতা বদরুল আলমের বিচার শুরুর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে আগামী ৫ ডিসেম্বর বাদীর জবানবন্দির মধ্য দিয়ে সাক্ষ্য গ্রহণ শুরু করার নির্দেশ দেন। আজ মঙ্গলবার দুপুর ১২টার দিকে সিলেটের মুখ্য মহানগর হাকিম সাইফুজ্জামান হিরো আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে এই আদেশ দেন।এ আদালতের অতিরিক্ত পিপি মাহফুজুর রহমান এই তথ্য জানান।

আসামি বদরুলের পক্ষে তার আইনজীবী সাজ্জাদুর রহমান এদিন জামিনের আবেদন করলে আদালত তা নাকচ করে দেয়।

এর আগে গত ৮ নভেম্বর খাদিজা হত্যাচেষ্টা মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সিলেট নগরীর শাহপরান থানার এসআই হারুনুর রশীদ আদালতে অভিযোগপত্র (চার্জশিট) দাখিল করেন। পরে গত ১৫ নভেম্বর আদালত অভিযোগপত্র গ্রহণ করেন।

প্রসঙ্গত, গত ৩ অক্টোবর এমসি কলেজের পুকুরপাড়ে সিলেট সরকারি মহিলা কলেজের স্নাতক দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী খাদিজা বেগম নার্গিসকে চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের ছাত্র বদরুল আলম। ধারালো অস্ত্রের আঘাতে তার মাথার খুলি ভেদে করে মস্তিষ্ক জখম হয়। এই ঘটনার পরপরই শিক্ষার্থীরা বদরুলকে আটক করে পুলিশের হাতে তুলে দেন। এ ঘটনায় খাদিজার চাচা আবদুল কুদ্দুস বাদী হয়ে বদরুলকে একমাত্র আসামি করে মামলা দায়ের করেন। গত ৫ অক্টোবর বদরুল আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। পরে তাঁকে কারাগারে প্রেরণ করেন আদালত। এছাড়া ঘটনার পর শাবি থেকে চূড়ান্ত বহিষ্কার করা হয় বদরুলকে।

গুরুতর আহত খাদিজাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় প্রথমে ওসমানী হাসপাতালে ও পরে ঢাকার স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। ধারালো অস্ত্রের আঘাতে তার মাথার খুলি ভেদে করে মস্তিষ্ক জখম হয়। প্রথম দিকে খাদিজাকে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়।  ঢাকার স্কয়ার হাসপাতালে তিন দফা অস্ত্রোপচারের পর অনেকটা সুস্থ হয়ে ওঠেন খাদিজা। শরীরের বাঁ পাশ স্বাভাবিকভাবে সাড়া না দেয়ায় চিকিৎসার জন্য স্কয়ার থেকে সোমবার তাঁকে পাঠানো হয় সাভারের সিআরপিতে।

সম্পাদনা : অরুন দাস।

Share on FacebookShare on Google+Tweet about this on TwitterPrint this page